সহযোদ্ধাদের মুক্তি চেয়ে ঈদের দিন শহীদ মিনারে নুর

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

১৪ মে ২০২১, ২০:২৫


সহযোদ্ধাদের মুক্তি চেয়ে ঈদের দিন শহীদ মিনারে নুর

শহীদ মিনারে সাবেক ভিপি নুর

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরকে কেন্দ্র করে গ্রেফতার ছাত্রদের মুক্তি চেয়ে ঈদের দিন কর্মসূচি পালন করেছে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ।

শুক্রবার (১৪ মে) বেলা ১১টায় ঈদের নামাজের পর মোদিবিরোধী বিক্ষোভ থেকে বাংলাদেশ ছাত্র, যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদের গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ডাকসুর সাবেক ভিপি ও ছাত্র, যুব শ্রমিক পরিষদের সমন্বয়ক ও সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের নেতৃত্বে মানববন্ধন হয়।
 
নুর বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশে আগমনের প্রতিবাদের কারণে আমাদের ৫১ জন সহযোদ্ধা এখনও কারাগারে। তারা কেউ ব্যাংক ডাকাত, লুটেরা বা ধর্ষক নন।

তিনি বলেন, তারা (গ্রেফতাররা) দেশের জন্য, গণতন্ত্রের জন্য, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণের কথা বলতে গিয়ে আজ জেলে। সভা-সমাবেশ, মিছিল-মিটিং গণতান্ত্রিক দেশে নাগরিক অধিকার। কিন্তু এই ফ্যাসিবাদী সরকার ভিন্নমত ও বিরোধীদের থামিয়ে দিতে দমন-পীড়ন করছে। দেশের রাজনৈতিক দলগুলো সরকারের দমন-পীড়নে কোণঠাসা হলেও তরুণদের সংগঠন ছাত্র, যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদ যখন মানুষের অধিকারের কথা বলছে, গুম-খুন ও ধর্ষণ-নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে, তখন আমাদের ওপরও সরকারের এই নগ্ন দমন-পীড়ন চলছে।

সরকারের উদ্দেশে ডাকসুর সাবে এ ভিপি বলেন, আমরা স্পষ্ট কথা বলতে চাই। আপনারা যতই মানুষের ওপর দমন-পীড়ন চালাবেন, মানুষ ততই প্রতিবাদী হয়ে উঠবে। আমার কোনো নেতাকর্মীর অপরাধ যদি প্রমাণ করতে পারেন, তাহলে স্বেচ্ছায় কারাবরণ করব। তাদের (গ্রেফতারদের) বিন্দুমাত্রও অপরাধ নেই। অন্যায়ভাবে তাদেরকে গ্রেফতার করে কারাগারে অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে, জামিন দেওয়া হচ্ছে না।

নুর বলেন, আমরা বলতে চাই, অবিলম্বে মোদিবিরোধী আন্দোলনে গ্রেফতার নেতাকর্মীদের মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় আমরা লকাডাউন উপেক্ষা করে রাজপথে নামতে বাধ্য হব। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নয়, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ দমনে সরকার লকডাউন দিয়েছে।  
 
ছাত্র অধিকার পরিষদের আরিফুল ইসলাম আদিবের সঞ্চলনায় আরও বক্তব্য রাখেন যুব অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক তারেক রহমান,  ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আবু হানিফ প্রমুখ।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে অংশ নিতে গত মার্চ মাসে বাংলাদেশ সফরে আসেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তার সফরের প্রতিবাদ করে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের ৫১ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। যারা তারা কারাগারে আছেন।

এনএম/আরএইচ 

Link copied