অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশি প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ

Dhaka Post Desk

মোশারফ হোসেন নির্জন, অস্ট্রেলিয়া

২০ মে ২০২২, ০৮:২৯ এএম


অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশি প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ

আগামী ২১ মে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় নির্বাচন। এবারই প্রথম একজন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নারী প্রার্থী হিসেবে দেশটির জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিয়ে ইতিহাস গড়লেন সাজেদা আক্তার। শুরু থেকেই হইচই ফেললেও এবার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

অস্ট্রেলিয়ার মূলধারার গণমাধ্যম তাদের জনপ্রিয় অনুষ্ঠান কারেন্ট এফেয়ার্সে এমপি প্রার্থী সাজেদা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে বেশকিছু অভিযোগ প্রচার করেছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সাজেদা আক্তারের নির্বাচন পূর্ববর্তীকালীন নিষ্ক্রিয়তাকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখানোর চেষ্টা করেছেন চ্যানেল নাইনের সাংবাদিক স্টিভ মার্শেল। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘সাজেদা গা ঢাকা দিয়েছেন’।

ভিডিও প্রতিবেদনে দেখা যায়, প্রতিবেদক স্টিভ নির্দিষ্ট অঞ্চলে গিয়ে ভোটারদের কাছে গিয়ে সাজেদার পরিচিত সম্পর্কে জানতে চান। অনেকে জানান, ‘তিনি (সাজেদা) আসলে দৃশ্যপটে নেই’।

এমনকি দেখা গেছে, সাজেদার স্বামী শাহেনুজামান টিটু তার স্ত্রীর পক্ষে ভোট কেন্দ্রের সামনে প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত। এসময় টিটু সাংবাদিকদের সঙ্গে বলতে অনীহা প্রকাশ করেন। জানান, স্ত্রী অসুস্থ থাকায় প্রচারণায় আসেননি।

তবে সাংবাদিক সেখানেই ক্ষান্ত হননি। গণমাধ্যমে প্রচারিত প্রতিবেদনে যুক্ত করেছেন টিটুর রাজনৈতিক ইতিহাস। এমনকি টিটুর দেউলিয়া ঘোষণা করে কাউন্সিলর পদ থেকে অব্যাহতির কথা উল্লেখ করাসহ আরেক স্থানীয় ব্যক্তির লোন সংক্রান্ত সমস্যার নেপথ্যে সাজেদা ও তার স্বামীর সংশ্লিষ্টতাও খতিয়ে দেখানো হয়। একইসঙ্গে সাজেদাকে লো-প্রোফাইল বলে আখ্যা দেওয়া হয়।

dhaka post

আলোচিত এই প্রতিবেদনটির বিষয়ে জানতে চাইলে সাজেদার স্বামী ঢাকা পোস্টকে বলেন, প্রতিপক্ষরা নির্বাচনের দু’দিন আগে পরিকল্পনা করে মিথ্যা অভিযোগ এনেছে। আমার স্ত্রী তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। অসুস্থতার কারণে গত কয়েকদিন ধরে তিনি প্রচারণা করতে পারছেন না। তার পক্ষে মুসলিম কমিউনিটিসহ মাল্টি কালচারাল মানুষদের ভোটব্যাংক বেড়ে যাওয়ায় এক দল হিংসা-বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে। আমি আইনজীবীর পরামর্শ নিচ্ছি। শিগগির সব অন্ধকার কেটে যাবে।

লাকেম্বার এক বাংলাদেশি ভোটার জানান, সাজেদা বিপুল ভোটে কাউন্সিলর পদে জয়ী হয়েছিলেন। এবার এমপি পদেও এগিয়ে আছেন দেখে অনেকে কলকাঠি নাড়ছে।

অন্যদিকে সাজেদা আক্তারের পক্ষে তার দল অস্ট্রেলিয়ার বর্তমান ক্ষমতাসীন লিবারেল পার্টি এক বিবৃতিতে জানায়, মিসেস আক্তার তার প্রচারণা এবং পারিবারিক প্রতিশ্রুতি নিয়ে কাজ নিয়মিত করছেন। স্থানীয় ভোটারদের সঙ্গে দেখা করতেও বেরিয়েছেন। গত সপ্তাহে মিসেস আক্তার অসুস্থ ছিলেন। যার ফলে তার প্রচারণার ক্ষমতা প্রভাবিত হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধান রাজনৈতিক দল লিবারেলের হয়ে (৭৮ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম হিজাবি মুসলিম নারী) সাজেদা আক্তার সংসদ নির্বাচনে নাম লেখান। তিনি ওয়েস্টার্ন সিডনির ফেডারেল আসন ওয়াটসনের জন্য এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শক্তিমান রাজনীতিবিদ টনি বার্কের প্রতিপক্ষ হিসেবে। এছাড়া সম্প্রতি তিনি প্রথম বাংলাদেশি নারী হিসেবে রোজল্যান্ড’র কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।

এমএইচএস

Link copied