আইআরএস-এর ট্যাক্স অডিট এড়াবেন যেভাবে 

Dhaka Post Desk

রাজুব ভৌমিক

০৮ এপ্রিল ২০২১, ১০:০৭

আইআরএস-এর ট্যাক্স অডিট এড়াবেন যেভাবে 

অবাক হলেও সত্য যে বেশিরভাগ মার্কিন কর পরিশোধকারী ইতোমধ্যে তাদের ট্যাক্স ফাইল করেছেন এবং অনেকের কাছে আইআরএস (ইন্টারনাল রেভিনিউ সার্ভিস) থেকে প্রদত্ত অর্থ বা ট্যাক্স রিফান্ডের অর্থ তাদের হাতে এসে পৌঁছেছে। আবার অনেকে কয়েক মাস আগে ট্যাক্স ফাইল করার পরও তাদের হাতে সে অর্থ এসে পৌঁছায়নি। ফলে অডিটের চিন্তায় দিন কাটছে তাদের। আইআরএস চলতি বছরের ট্যাক্স ফাইল করার শেষ দিন নির্ধারণ করেছে ১৭ মে। 

আইআরএসের অডিটে পড়লে কর পরিশোধকারীকে যে কত ঝামেলায় পড়তে হয় তা একমাত্র ভুক্তভোগীই জানেন। জেনে নেওয়া যাক আইআরএস কেন সাধারণত অডিট করে থাকে। এগুলো জানা থাকলেই এই অডিট এড়িয়ে চলা সম্ভব। 

এক. আইআরএসের ডিআইএফ নামে একটি কম্পিউটার পদ্ধতি রয়েছে যা জনগণের ট্যাক্সের রিটার্ন অনিয়ম শনাক্ত করতে পারে। ডিআইএফ-এর ডিজাইন ঠিক সেভাবেই করা হয়েছে। ডিআইএফ আইআরএস সিস্টেমে আসা সব ট্যাক্স রিটার্ন স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্ক্যান করে। ডিআইএফ মূলত ট্যাক্স ফাইলের অনিয়ম সন্ধান করে। এটি যে তিনটি অনিয়ম সন্ধান করে সেগুলো হচ্ছে— ডিপেন্ডেন্ট, ডিডাকশান এবং ক্রেডিট। ডিআইএফে কোনো অনিয়ম ধরা পড়লে সেগুলো আইআরএসের মানব এজেন্ট দ্বারা রিভিউ বা অডিট হয়। 

দুই. আরেকটি কারণে ট্যাক্স ফাইল অডিট হতে পারে- যদি কেউ আয়ের উৎস বাদ দেন বা যা আয় তার চেয়ে কম আয়ের প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। কেউ যদি কোনো ফরম ফাইল করতে ভুলে যান বা অনিচ্ছাকৃতভাবে আয়ের একটি ছোট অংশ না দেখান, তবে আইআরএস সাধারণত অডিট করে না। তবে ইচ্ছাকৃতভাবে আয়ের উৎস বাদ দেওয়া হলে অডিট হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। 

তিন. চাকরিক্ষেত্র থেকে W-2 ফরমের একটি অনুলিপি করদাতার কাছে এবং আরেকটি অনুলিপি আইআরএসের কাছে যায়। স্বতন্ত্র ঠিকাদার এবং ফ্রিল্যান্সারদের আয় ৬শ ডলারের বেশি হলে তারা 1099-MISC ফরম পান এবং আইআরএস এটির একটি অনুলিপিও পায়। যদি আপনার কোনো লভ্যাংশের আয় থাকে তাহলে 1099-INT বা 1099-DIV একটি কপি আপনি এবং আরেকটি কপি  আইআরএস পাবে। আয়ের কোনো অংশ ক্যাসিনো বা লটারি জেতা থেকে এলে  W-2G ফরম পাবেন। এর একটি কপি আইআরএস পাবে। এসব তথ্য আইআরএসের ডিআইএফে জমা হয়। সুতরাং আয় কম দেখালে ধরা পড়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে। 

চার. কথায় আছে যার যত টাকা তার তত মাথা ব্যথা। আইআরএসের ক্ষেত্রেও তাই। উচ্চ-আয়ের উপার্জনকারীদের ট্যাক্স অডিটের সম্ভাবনা অনেক বেশি। করদাতার আয় পাঁচ লাখ ডলার হলে সে সম্ভাবনা দ্বিগুণ হয় এবং করদাতার আয় পাঁচ মিলিয়ন ডলার হলে সেই সম্ভাবনা চার থেকে সাত গুণ বেশি হয়ে থাকে। 

পাঁচ. ব্যাংক সিকিওরিসি আইনের অধীনে যদি কেউ ১০ হাজার ডলারের বেশি নগদ লেনদেন করে তাহলে আইআরএস এবং অন্যান্য ফেডারেল এজেন্সিগুলোকে জানাতে হবে। এ আইনটি অবৈধ কার্যক্রম ঠেকাতে চালু করা হয়েছিল। এক্ষেত্রেও নগদ লেনদেন যদি আয়ের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ না হয়ে থাকে, তাহলে অডিট হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। সেজন্য ট্যাক্স রিটার্ন দাখিল করার সময়  কিভাবে এবং কেন এই অর্থ পাওয়া গেছে তা দেখাতে হবে। নতুবা অডিটের আওতায় পড়তে হবে।  

তাছাড়া কেউ যদি প্রচুর আইটেমাইজ ডিডাকশান বা আইটেমযুক্ত ছাড় দাবি করেন বা নিজস্ব ছোট ব্যবসা আছে দাবি করেন তাহলেও অডিটের সম্ভাবনা বেশি থাকে। আর দেশের বাইরে কারও নামে যদি কোনো অর্থ বা সম্পত্তি থাকে তাহলেও অডিট হতে পারে।

এনএফ

Link copied