৭ রান করেই ইতিহাস গড়লেন ফারজানা

Dhaka Post Desk

স্পোর্টস ডেস্ক

১৮ জানুয়ারি ২০২২, ০৩:৫৫ পিএম


৭ রান করেই ইতিহাস গড়লেন ফারজানা

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে শেষ কিছুদিন ধরেই ফারজানা হক পিংকির ব্যাট হাসছে দারুণভাবে। শেষ পাঁচ ইনিংসে ফিফটি আছে দুটো, একটা আছে চল্লিশোর্ধ্ব ইনিংস। তবে আজ যা করলেন তা তার ধারে কাছেও যায়নি, বাংলাদেশ লক্ষ্য তাড়া করে ফেলায় তাকে থামতে হয়েছে দশের আগেই। তবে যে ৭টা রান করেছেন, তাতেই বাংলাদেশের হয়ে ইতিহাস গড়া হয়ে গেছে তার। বাংলাদেশের প্রথম নারী ক্রিকেটার হিসেবে ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতর ফরম্যাটে তিনি ছুঁয়ে ফেলেছেন চার অঙ্কের রান।

তিনি ব্যাটিংয়ে আসার আগেই জয় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের। সুরাইয়া আজমিন, সালমা খাতুন, রিতু মণি, রুমানা আহমেদদের কিপটে বোলিংয়ে মালয়েশিয়াকে কমনওয়েলথ গেমসের বাছাইপর্বের ম্যাচে মাত্র ৪৯ রানেই রুখে দিয়েছিল লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। জবাবে শামিমা সুলতানার আগুনে ব্যাটিংয়ে ৬ ওভার শেষেই সে লক্ষ্যটার খুব কাছে চলে যায় বাংলাদেশ। তখনই মুরশিদা খাতুনের বিদায়ে উইকেটে আসেন তিনি। 

ইতিহাস গড়তে তারও অবশ্য খুব বেশি রান দরকার ছিল না। দুই রান করলেই ঢুকে যেতেন ১০০০ রান করাদের ক্লাবে। সে দুটো রান ইনিংসের সপ্তম ওভারেই তুলে নেন তিনি। তাতেই গড়া হয়ে যায় ইতিহাস। তবে তিনি সেখানেই থামেননি, দলকে জিতিয়ে তবেই মাঠ ছেড়েছেন। বাংলাদেশ পেয়ে গেছে ৮ উইকেটের দাপুটে এক জয়। 

এই ম্যাচের পর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ফারজানার রানসংখ্যা দাঁড়ালো ১০০৫-এ। তার কাছে আছেন অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। তার রানসংখ্যা ৮৬১। 

ফারজানার এই অর্জন অবশ্য যে কোনো ফরম্যাটেই বাংলাদেশের জন্য প্রথম। ওয়ানডে ফরম্যাটে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের কেউ হাজারি ক্লাবে পা রাখতে পারেননি। রুমানা আহমেদ ৮৯৩ রান নিয়ে অপেক্ষায় আছেন অবশ্য। ৮৪১ রান করে তার ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন ফারজানা।

উল্লেখ্য, টি টোয়েন্টি ফরম্যাটে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি অর্ধশতকও আছে ফারজানারই দখলে। এ পর্যন্ত ৩ বার পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলেছেন তিনি, যার শেষ দুটো এসেছে শেষ পাঁচ ইনিংসে। ৬৪ ইনিংস খেলে একটি সেঞ্চুরিও পেয়েছেন তিনি।

আন্তর্জাতিক নারী টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের হয়ে শীর্ষ ৫ রান সংগ্রাহক

নাম ইনিংস রান সর্বোচ্চ
ফারজানা হক পিংকি ৬৪ ১০০৫ ১১০* 
নিগার সুলতানা জ্যোতি ৫০ ৮৬১ ১১৩*
রুমানা আহমেদ ৬০ ৭৪৬  ৫০
আয়েশা রহমান ৫৩ ৭০০  ৪৬
সালমা খাতুন ৪৯ ৫৩১  ৪৯*
Link copied