‘মাঝেমধ্যে এমন হয়, প্রতিদিন হয় না’

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

২২ জানুয়ারি ২০২২, ০৬:২৫ পিএম


‘মাঝেমধ্যে এমন হয়, প্রতিদিন হয় না’

জয়ের জন্য লক্ষ্য মাত্র ৯৭ রানের। এতেই যেন লেজেগোবরে অবস্থা! লো স্কোরিং ম্যাচটিও সহজে জিততে পারল না কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। শেষ ৪২ বলে ১৮ রান প্রয়োজন হলেও ওই রান তুলতে গিয়ে বিপদে পড়ে কুমিল্লা। এই সময়ে ৩ উইকেটসহ হারিয়ে বসে ৮ উইকেট। এতে পরাজয়ের শঙ্কা মাথা চাড়া দেয়। যদিও শেষ পর্যন্ত আর সিলেট সানরাইজার্সের কাছে হারতে হয়নি তাদের। ২ উইকেট ও ৬ বল হাতে রেখে জয় পায় তারা।

লো স্কোরিং ম্যাচে এমন জয়ের পর কুমিল্লার অধিনায়ক ইমরুল কায়েস জানালেন, মাঝেমধ্যে এমন পরিস্থিতি তৈরি হলেও প্রতিদিন হয় না।

এক ভিডিও বার্তায় ইমরুলের ব্যাখ্যা, ‘একটা দলের মাঝেমধ্যে এমন ম্যাচ হয়, প্রতিদিন কিন্তু হয় না। দল অনুযায়ী আমরা খুবই ভালো দল। প্রতিটা ব্যাটসম্যান তো প্রতিদিন এভাবে খেলবে না। বড় ব্যাটসম্যান যারাই আছেন তারা বড় ইনিংস খেলবেনই। যখন বড় স্কোর করবে তখন দেখবেন পরের ব্যাটসম্যানের জন্য বিষয়টা আরও সহজ হয়ে যাবে।’

কষ্টার্জিত হলেও পূর্ণ দুই পয়েন্ট নিয়ে এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ শুরু করেছে কুমিল্লা। সুখকর অনুভূতি নিয়ে ইমরুল জানালেন, দলের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে এই জয় প্রয়োজন ছিল তাদের।

ইমরুল বলছিলেন, ‘জিতলে দলের একটা ভালো অনুভূতি হয়। দলের আত্মবিশ্বাস বাড়ে। যেহেতু এটা আমাদের প্রথম ম্যাচ, আমরা আমাদের দলীয় খেলাটা দেখাতে পারিনি। বোলাররা বেশ ভালো করেছে। আমি আশা করছি ব্যাটিংটাও পরের ম্যাচে ঠিক হয়ে যাবে। প্রথম ম্যাচে সবগুলো দলই স্ট্রাগল করে কন্ডিশন ও পরিকল্পনার সঙ্গে। আমি মনে করি যে আমি খুশি যে আমরা ম্যাচটা জিতেছি।’

লো স্কোরিং ম্যাচে উইকেটের প্রসঙ্গে টেনে বলেন, ‘দেখেন উইকেট প্রথম হাফে কিছুটা কঠিন ছিল, আমাদের বোলাররা উইকেটের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যথেষ্ট ভালো পরিকল্পনামাফিক বোলিং করেছে। কিন্তু লো স্কোরিং ম্যাচে সবসময়ই একটু সমস্যা হয় রান চেজিংয়ের ক্ষেত্রে। একটা পরিকল্পনা করলে সেখানে একটু সমস্যা হয়। একটা উইকেট পড়ে গেলে আরেকজন বোলার এসে চেষ্টা করে কিছু বল ডট দেয়ার। তখন কিন্তু একটা চাপে পড়ে যায়।’

টিআইএস/এমএইচ/এটি

Link copied