চুয়াডাঙ্গায় আ.লীগের হামলায় বিএনপির ইফতার পার্টি পণ্ড

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, চুয়াডাঙ্গা

১২ এপ্রিল ২০২২, ১০:০২ পিএম


চুয়াডাঙ্গায় আ.লীগের হামলায় বিএনপির ইফতার পার্টি পণ্ড

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় সম্মেলন শেষে অনুষ্ঠিত বিএনপির ইফতার পার্টিতে হামলা চালিয়ে পণ্ড করে দিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় প্যান্ডেলসহ শতাধিক চেয়ার ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় আহত হন বিএনপির দুই নেতা। তাদেরকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। 

মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টার দিকে আলমডাঙ্গা উপজেলার নাগদহ ইউনিয়নের জোড়গাছা গ্রামে ইউপি সদস্য শাহিনের বাগানবাড়িতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। 

তবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দাবি, বিএনপির দুগ্রুপের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মী সেখানে যায়নি।

ইউপি সদস্য ও বিএনপির নেতা শাহিন ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমার বাগানবাড়িতে নাগদহ ইউনিয়ন বিএনপির সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠনের প্রস্তুতি চলছিল। ইফতারের সময় হলে নেতাকর্মীরা প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এ সময় হঠাৎ নাগদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হায়াত আলীর নেতৃত্বে ২০/৩০ জন আমাদের ওপর লাঠিসোঁটা নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। ভাঙচুর করে প্যান্ডেলসহ শতাধিক চেয়ার-টেবিল। এ ঘটনায় বিএনপির ২ নেতা আহত হয়।

তিনি আরও বলেন, প্রায় পাঁচ শতাধিক ইফতারির আয়োজন করা হয়েছিল। বেশিরভাগই নষ্ট হয়ে গেছে। 

চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির সদস্য সচিব শরিফুজ্জামান শরীফ ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমি সম্মেলনে পৌঁছানোর আগেই হামলার ঘটনা ঘটে। পরে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ঘটনায় আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব। বিএনপি বাংলাদেশের নিষিদ্ধ কোনো দল না। যত প্রতিবন্ধকতা থাকুক, এই সম্মেলন হবেই। দল পুনর্গঠনের কাজ চলতে থাকবে। কোনো বাধা আমাদের থামাতে পারবে না।

এ বিষয়ে জানতে নাগদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হায়াত আলী ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমাদের কোনো নেতাকর্মী এ হামলা করেনি। আমার নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিলেও আমি তাদেরকে ফিরিয়ে দিই। মূলত বিএনপি ও যুবদলের মধ্যে গ্রুপিংয়ের কারণে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। 

ঘোলদাড়ি ক্যাম্প পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক সোহেল রানা ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। 
পুলিশের অনুমতি ছাড়ায় বিএনপির কিছু কর্মীরা সম্মেলন বা মিটিং করছিল। এ সময় কিছু দুর্বৃত্ত তাদের ওপর হামলা চালিয়ে উচ্ছেদ করে দিয়েছে। কিছু চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করে তারা। 

আমি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলেছি, তারা জানিয়েছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা থানায় অভিযোগ বা মামলা করলে পুলিশ তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

আফজালুল হক/আরআই

Link copied