দেশে ২ লাখ শ্রমিকের সংকট রয়েছে : ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

Dhaka Post Desk

উপজেলা প্রতিনিধি, সাভার (ঢাকা) 

২০ মে ২০২২, ০৯:৩৬ পিএম


দেশে ২ লাখ শ্রমিকের সংকট রয়েছে : ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেছেন, বাংলাদেশে প্রায় ২ লাখ শ্রমিকের সংকট রয়েছে। বাংলাদেশ আজ বুঝেছে শ্রমিকের প্রয়োজনীয়তা। শুক্রবার (২০ মে) আশুলিয়ার জামগড়ার চিত্রশাইল এলাকার হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে মে দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় যোগ দিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। দেশে প্রায় ২ লাখ শ্রমিকের ঘাটতি রয়েছে। আপনারা যারা শিল্পকারখানায় কাজ করছেন, তারা বেকারদের কাজের জন্য আহ্বান জানান। 

আপনারা জানেন যে শিল্পকারখানাগুলোতে কর্মের পরিবেশ ভালো, মজুরিও ভালো। এ কারণে তারা যেন বেকার না থাকেন। এর ফলে এক দিকে বেকার সমস্যা দুর হবে, অন্যদিকে শ্রমিক সংকটও দুর হবে। এ কাজটা করতে পারলে আমাদের শিল্পের বিকাশ হবে। শ্রমিকসংকটের কারণে শিল্পের কিন্তু বিকাশ হবে না। আমরা এক জায়গায় থেমে যাব।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শ্রমিকদের অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে দেখছেন বলে আজ শ্রমিকরা ভালো আছে। প্রধানমন্ত্রী সবসময় শ্রমিকদের কথা ভাবেন। শ্রমিকদের নিয়ে আলোচনা করেন, শ্রমিকদের জন্য কাজ করেন। আপনারা প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করবেন।

প্রত্যেকটা মানুষ ও শ্রমিক করোনা সংকটের মধ্যেও খেয়ে-পরে বেঁচে আছেন উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রতিটা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সচল আছে। ১ লাখ ৩৫ হাজার কোটি টাকার ১১১টি প্রণোদনা প্যাকেজ দেওয়া হয়েছিল করোনা সংকটের সময়। প্রধানমন্ত্রীর বিচক্ষণ সিদ্ধান্তের কারণে সম্পূর্ণ শিল্পপ্রতিষ্ঠান সচল ছিল। শ্রমিকদের কথা ভেবেই এসব প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে।

এনামুর রহমান বলেন, দেশের প্রায় ১৪ কোটি মানুষকে করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া প্রায় ৭২ শতাংশ মানুষকে টিকা দিয়ে দেশের করোনা নির্মূল করা হয়েছে। আমরা মাস্ক ছাড়া সমাবেশ করতে পারছি। দেশে এখন করোনায় মৃত্যু নেই। পৃথিবীর উন্নত দেশে হাজারো সংক্রমণ হচ্ছে। শত শত মানুষ মারা যাচ্ছে। সে তুলনায় দেশ অনেক ভালো রয়েছে। আরও ২৩ কোটি টিকা মজুদ রয়েছে, যা আগামীতে কয়েকটি দেশে এই টিকা দিয়ে সহায়তা করব। 

তিনি বলেন, আমরা আগামী মাসে পদ্মা সেতু উদ্বোধন করব। গত মাসে পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র উদ্বোধন করেছি। এ ছাড়া নরসিংদীর পলাশে এশিয়ার সর্ববৃহৎ সার কারখানার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে গত মাসেই। এখানে উৎপাদন শুরু হলে আর সার আমদানি করতে হবে না। 
 
বর্তমানে আমরা ২৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করছি। বিদ্যুতের কোনো সংকট নেই, লোডশেডিং নেই। এসব উন্নয়ন বর্তমান প্রজন্ম দেখেছে। তারা নৌকা ছাড়া অন্য প্রতীকে ভোট দিবেন না বলে বিশ্বাস করি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাভার উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজীব, ভাইস চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন খান, আশুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগ ও এর অংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মাহিদুল মাহিদ/আরআই

Link copied