প্রথমবার ৭০ টন ক্ষমতাসম্পন্ন টাগবোট নির্মাণ করছে খুলনা শিপইয়ার্ড

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা 

২৩ মে ২০২২, ০৪:৫০ পিএম


প্রথমবার ৭০ টন ক্ষমতাসম্পন্ন টাগবোট নির্মাণ করছে খুলনা শিপইয়ার্ড

দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্পে আরেকটি মাইলফলক অর্জন করতে যাচ্ছে খুলনা শিপইয়ার্ড। দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ৭০ টন বোলার্ড পুল বিশিষ্ট ২টি টাগবোট নির্মাণ করতে যাচ্ছে খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড (খুশিলি)। কাজ শেষ হলে এটাই হবে বাংলাদেশে এ যাবৎকালে নির্মিত সবচেয়ে বেশি বোলার্ড পুল ক্ষমতাসম্পন্ন টাগবোট।

সোমবার (২৩ মে) দুপুরে শিপইয়ার্ডে পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের জন্য নির্মিতব্য এই দুইটি টাগ বোটের কিল লেয়িংয়ের উদ্বোধন করা হয়েছে।

খুলনা শিপইয়ার্ড সূত্রে জানা গেছে, সর্বাধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ টাগবোট দুইটিতে অত্যাধুনিক মেশিনারি ও যন্ত্রপাতি সংযোজিত করা হবে। এটা আন্তর্জাতিক সমুদ্রসীমা ও বন্দরসমূহে যাতায়াত করতে সক্ষম। টাগবোটসমূহ বন্দরে আগত যেকোনো জাহাজের বার্থিং/আন বার্থিং, টোউ, পুশ/পুল অপারেশন ছাড়াও ফায়ার ফাইটিং, অন্য জাহাজের দুর্ঘটনাকালীন সহযোগিতার জরুরি কাজ সম্পাদনে ব্যবহৃত হবে। বোট দুইটি বন্দরের মাদার ভেসেল নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালনাসহ বিভিন্ন অফশোর সাপোর্ট কার্যাবলী সম্পাদনে সক্ষম হবে, যা বন্দরের সক্ষমতা বহুগুণ বৃদ্ধি করবে।

dhakapost

এ ছাড়া পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষকে একটি আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন বন্দরে পরিণত করতে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে। সর্বোপরি দেশে নির্মিত প্রথম ৭০ টন বোলার্ড পুল টাগ বোট হিসেবে ইহা খুলিশি তথা দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্পের মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত হবে। টাগবোটদ্বয আন্তর্জাতিক ক্লাসিফিকেশন সোসাইটি ব্যুরো ভেরিটাস (ফ্রান্স) এর নীতিমালা অনুসরণ করে নির্মাণ করা হবে।

কিল লেয়িং অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মো. সোহায়েল বলেন, স্বাধীনতার পরপরই নৌপথের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে বঙ্গবন্ধু এদেশে জাহাজ নির্মাণ শুরু করেন। তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে জাহাজ নির্মাণ শিল্পে বাংলাদেশ তার হারানো ঐতিহ্য ফিরে পেতে যাচ্ছে। তিনি দক্ষিণাঞ্চল তথা দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের কথা চিন্তা করে পায়রা বন্দর স্থাপন করেছেন। 

পায়রা বন্দরের মাধ্যমে এ অঞ্চলের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হতে শুরু করেছে। অচিরেই এটি দেশের আমদানি-রপ্তানির কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হতে যাচ্ছে। এই বন্দরকে কেন্দ্র করে এ অঞ্চলে প্রচুর দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আসছে।

খুলনা শিপইয়ার্ডের জাহাজ নির্মাণের ঐতিহ্যবাহী ইতিহাস রয়েছে উল্লেখ করে মো. সোহায়েল বলেন, ভবিষ্যতেও পায়রা বন্দর ও খুলনা শিপইয়ার্ড পারস্পরিক উন্নয়নে এক সাথে কাজ করবে।

খুলনা শিপইয়ার্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমোডর এম সামছুল আজিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কিল লেয়িং অনুষ্ঠানে পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (হারবার অ্যান্ড মেরিন) কমডোর এম মামুনুর রশীদসহ শিপইয়ার্ডের ঊর্ধ্বতন সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তা এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

মোহাম্মদ মিলন/আরআই

Link copied