চলন্ত বাসে ডাকাতির ঘটনায় আরও দুইজন গ্রেপ্তার

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল

০৫ আগস্ট ২০২২, ০২:০৫ পিএম


টাঙ্গাইলে চলন্ত বাস জিম্মি করে ডাকাতি ও ধর্ষণের ঘটনায় আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। শুক্রবার (৫ আগস্ট) দুপু‌রে নিজ কার্যাল‌য়ের কনফা‌রেন্স রু‌মে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান টাঙ্গাইলের পু‌লিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার কাঞ্চনপুর গ্রামের শুকুর আলী ছেলে আউয়াল (৩০) ও কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার ধোনারচর পশ্চিমপাড়া গ্রামের বাহেজ উদ্দিনের ছেলে নুর নবী (২৬)। এর আগে বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) সকালে একই মামলায় রাজা মিয়া নামে একজনকে টাঙ্গাইল সদর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন : চলন্ত বাসে নারীকে ধর্ষণ ক‌রে ৬ ডাকাত

পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, গত ২ আগস্ট রাতে কুষ্টিয়া থেকে নারায়ণগঞ্জগামী নৈশ কোচ ঈগল এক্সপ্রেস বাসে ডাকাতি ও ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গত দুইদিনে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রথমে গ্রেপ্তার রাজা মিয়ার দেওয়া তথ্যে গাজীপুরে অভিযান চালিয়ে আউয়াল ও নুর নবীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় আসামি নুর নবীর কাছ থেকে ডাকাতি করা ১টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। নুর নবীর বিরুদ্ধে এর আগেও ডাকাতি ও ছিনতাই মামলা রয়েছে। তাদের আরও কোনো অপরাধ আছে কিনা সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। 

dhakapost

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাতে কুষ্টিয়া থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী ঈগল পরিবহনের একটি বাসে ডাকাতি ও এক যাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। যা দেশব্যাপী ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে। এ ঘটনায় ডাকাতি ও ধর্ষণের মূলহোতা রাজা মিয়া নামে একজনকে টাঙ্গাইল শহরের নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুন : যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডাকাতি

অন্যদিকে ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে। টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) দুপুরে ডাক্তারি পরীক্ষার পর বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রুমি খাতুনের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন ওই নারী।

অভিজিৎ ঘোষ/আরএআর

Link copied