৪০ বছর ধরে হাঁটছেন নন্দন

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:১০ এএম


অডিও শুনুন

ঠাকুরগাঁও পৌর শহরের বাসিন্দা সত্য প্রসাদ ঘোষ নন্দন। তবে সবাই তাকে চেনেন ‘নন্দ দা’ হিসেবে। বয়স ৫৭ পেরিয়েছে। পেশায় তিনি একজন ব্যবসায়ী ও ঠিকাদার। সুস্থ থাকতে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ৪০ বছর ধরে সন্ধ্যায় নিয়মিত হাঁটেন তিনি। 

সত্য প্রসাদ ঘোষ বলেন, জেলা স্কুল বড় মাঠে আমি প্রায় ৪০ বছর ধরে হাঁটি। আমি সব সময় মনে করি, শরীর ঠিক রাখতে হাঁটার কোনো বিকল্প নেই। আমার বয়স ৫৭ পেরিয়েছে। আমার অনেক বন্ধু অসুস্থ হয়ে বিছানায় দিন পার করছে কিন্তু আমার আজ পর্যন্ত বড় ধরনের কোনো রোগ হয়নি। আমি মনে করি, এটা আমার হাঁটার সুফল। 

তিনি বলেন, শুরুর দিকে আমি মাঠে দশ পাক দিতাম, এখন আট পাক করে দেয়। আর হাঁটার কারণে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। এ মাঠে সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত অনেক মানুষ হাঁটেন। যেহেতু আমরা রাতে হাঁটি, মাঠের চার পাশে লাইটিংয়ের ব্যবস্থা আরও উন্নত হওয়া দরকার। অনেকগুলো লাইট জ্বলে না। আবার চারপাশে গাছ থাকার কারণে কখনো কখনো একজন আরেকজনের মুখোমুখি হতে হয়। সেজন্য যদি লাইটিং ব্যবস্থা ভালো হয়, তবে আমাদের জন্য সুবিধা হয়। আমাদের বর্তমান প্রজন্মের সবাইকে হাঁটা-চলা করা উচিত। 

মাঠে হাঁটতে এসেছেন এক কলেজশিক্ষক। তিনি বলেন, আমি দীর্ঘ দিন থেকে ডায়াবেটিস রোগে ভুগছি। এ রোগের কারণে নানা সময় নানা ধরনের রোগ শরীরে বাসা বাধে। তারপর আমি মাঠে হাঁটা শুরু করি। আলহামদুলিল্লাহ এখন আমার শরীর বেশ ভালো। আর ডায়াবেটিসের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। 

হাঁটতে আসা গৃহিণী ফাতেমা বিনতে আকবর বলেন, সারা দিন বাসায় কাজ করতে হয়। আর বয়স হওয়ার কারণে হৃদরোগসহ নানা রোগে আক্রান্ত আমি। তিন মাস ধরে সন্ধ্যায় মাঠে হাঁটছি। এখন অনেকটা ভালো লাগে। তবে মাঠের লাইটিং ব্যবস্থা আরও ভালো করা উচিত। আমরা কখনো কখনো হোঁচট খায়, আবার মুখোমুখি হয়ে যায় একজন আরেকজনের। আর মাঠের চারপাশে কিছু বসার ব্যবস্থা করলে ভালো হয়। অনেক সময় হাঁটার পর অনেক ক্লান্তি লাগে, মনে হয় বসতে পারলে ভালো লাগতো অনেক। যদি বসার ব্যবস্থা করা হয় তাহলে আমাদের জন্য ভালো হয়। 

স্কুলশিক্ষিকা হোসনে আরা বেগম বলেন, রোগ থেকে মুক্তির মূল কথা হল পরিমিত খাবার ও শারীরিক ব্যায়াম করা। এগুলোর মাধ্যমে শরীরকে ফিট রাখা যায়। শরীরের সক্ষমতা বাড়াতে আমাদের সকলের উচিত হাঁটা। হাঁটলে শরীর ঠিক থাকে আবার কাজে প্রফুল্লতা আসে। আর বর্তমান প্রজন্ম তো ইন্টারনেটে আসক্ত। তাদের মাঠে এসে হাঁটার জন্য আমি আহ্বান করব। এতে পরবর্তী সময়ে তাদের নিজেদের উপকার হবে। 

হাঁটার উপকারিতা নিয়ে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রকিবুল আলম চয়ন ঢাকা পোস্টকে বলেন, এখন মানুষ নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছেন। বিশেষ করে ব্লাড প্রেসার, ডায়াবেটিস, হৃদরোগে আক্রান্ত হচ্ছেন বেশি। এ রোগগুলো থেকে দূরে থাকতে শারীরিক ব্যায়ামের বিকল্প নেই। আমেরিকান সোসাইটি অফ ফিজিশিয়ান বলেছেন, যদি নিয়মিত পয়তাল্লিশ মিনিট হাঁটা যায়, তাহলে পঞ্চাশ শতাংশ রোগ কমে যায়। সেজন্য সুস্থ থাকতে সব বয়সী মানুষের শারীরিক ব্যায়াম ও হাঁটা উচিত।  

লাইটিং ও বসার ব্যবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে ঠাকুরগাঁও পৌরসভার মেয়র আঞ্জুমান আরা বন্যা ঢাকা পোস্টকে বলেন, যেসব লাইট নষ্ট হয়ে গেছে, আমরা সেগুলো দ্রুত সময়ের মধ্যে ঠিক করে দেবো। 

এম এ সামাদ/এসপি

Link copied