তরুণীকে গণধর্ষণের পর তিনজনকে ধরে পুলিশে দিলো জনতা

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, বগুড়া

১৬ এপ্রিল ২০২১, ১৯:৫৪

তরুণীকে গণধর্ষণের পর তিনজনকে ধরে পুলিশে দিলো জনতা

ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার তিনজন

বগুড়ায় শেরপুরের বাগড়া হঠাৎপাড়া গ্রামে বাসায় কাজ দেওয়ার নামে ডেকে নিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গণধর্ষণের পর পালানোর সময় তাদের ধাওয়া দিয়ে ধরে পুলিশে দেয় জনতা।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) রাতে হঠাৎপাড়া গ্রামে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। রাতেই নিজে বাদী হয়ে শেরপুর থানায় মামলা করেন তরুণী।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের বাগড়া হঠাৎপাড়া গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে মামুন প্রামাণিক (৩৫), একই গ্রামের আবুল শেখের ছেলে আব্দুল খালেক (৪০) ও পৌর শহরের উত্তর সাহাপাড়া এলাকার সাইফুল সরকারের ছেলে সোহাগ সরকার (২২)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধুনট উপজেলার এক তরুণী বৃহস্পতিবার বিকেলে বাসায় কাজের খোঁজে শেরপুর শহরে আসেন। কাজের সন্ধান শেষে বাড়িতে যাওয়ার জন্য ধুনট মোড় এলাকায় বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে সিএনজির জন্য অপেক্ষা করছিলেন।

এ সময় মামুন প্রামাণিক, আব্দুল খালেক ও সোহাগ সরকারের সঙ্গে পরিচয় হয় তরুণীর। তারা তরুণীকে একজনের বাড়িতে কাজ দেওয়ার কথা বলে জনৈক আব্দুস সাত্তারের পুকুর পাড়ে নিয়ে যায়। সেখানে তরুণীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে চারজন মিলে ধর্ষণ করে। তরুণীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ধর্ষণকারীরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তখন স্থানীয় লোকজন ধাওয়া করে তিনজনকে আটক করে পুলিশে দেয়। অপরজন দুলু শেখ পালিয়ে যায়।

শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত তিনজনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অপরজনকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

সাখাওয়াত হোসেন জনি/এএম/জেএস

Link copied