লক্ষ্মীপুরে সমালয় পদ্ধতির চাষাবাদে সংকট দূর হবে কৃষকের

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, লক্ষ্মীপুর

১২ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০৬:৫৪ পিএম


লক্ষ্মীপুরে সমালয় পদ্ধতির চাষাবাদে সংকট দূর হবে কৃষকের

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে কৃষিতে যন্ত্রের ব্যবহার সহজ করতে বিস্তীর্ণ জমিতে সমালয় পদ্ধতিতে চাষাবাদ শুরু হয়েছে। শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার উত্তর চরলরেঞ্চ গ্রামে জেলা প্রশাসক আনোয়ার হোছাইন আকন্দ এ চাষাবাদের উদ্বোধন করেন।

সমালয় পদ্ধতিতে কৃষক ধানের চারা যন্ত্রের মাধ্যমে রোপণ করবেন। ধান পাকলে আবার যন্ত্রের মাধ্যমেই কেটে তা ঘরে তুলতে পারবেন। এতে শ্রমিক-সংকটসহ অন্যান্য প্রতিবন্ধকতা দূর হবে। উৎপাদন খরচ কম পড়বে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।

কমলনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. কামরুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. ইখতারুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক ড. মো. জাকির হোসেন, কমলনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মেজবাহ উদ্দিন বাপ্পী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আতিক আহমেদ ও কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম নুরুল আমিন মাস্টার প্রমুখ।

Dhaka Post

কৃষক হারুনুর রশিদ বলেন, সনাতন পদ্ধতিতে মাটিতে ধানের চারা রোপণ করতে গিয়ে মাটি ভেঙে বীজতলা নষ্ট হয়ে যেত। কিন্তু সমালয়ে সে রকম কোনো সম্ভাবনা নেই।

উপপরিচালক ড. মো. জাকির হোসেন জানান, সমালয় ধান চাষপদ্ধতিতে বিস্তীর্ণ জমি আধুনিক যন্ত্রের মাধ্যমে চাষাবাদের আওতায় আনা হয়ে থাকে। এতে ট্রে ও পলিথিনে বিশেষ পদ্ধতিতে তৈরি করা হয় বীজতলা। চারা হতে সময় নিয়েছে সাত দিন। সেখান থেকেই বীজ নিয়ে বপন করা হয় খেতে।

তিনি আরও জানান, চলতি বোরো মৌসুমে চর লরেঞ্চ গ্রামে ৬০ কৃষকের ৫০ একর জমিতে এ পদ্ধতিতে ধানের চাষাবাদ করা হচ্ছে। এ পদ্ধতিতে উৎপাদন খরচ কমার পাশাপাশি ধান চাষে লাভবান হবেন কৃষক।

হাসান মাহমুদ শাকিল/এনএ

Link copied