পুঁজি ফিরেছে ৫ হাজার কোটি টাকা, স্বস্তিতে বিনিয়োগকারীরা

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

১৮ আগস্ট ২০২২, ০৫:১৬ পিএম


পুঁজি ফিরেছে ৫ হাজার কোটি টাকা, স্বস্তিতে বিনিয়োগকারীরা

এক সপ্তাহ দরপতনের পর সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় আগস্ট মাসের তৃতীয় সপ্তাহ পার করল দেশের পুঁজিবাজার। বস্ত্র ও বিমা খাতের শেয়ারের দাম বাড়ায় বিদায়ী (১৪ আগস্ট -১৭ আগস্ট) সপ্তাহে লেনদেন হওয়া শেয়ারের দামের সঙ্গে বেড়েছে সূচকও। এতে বিনিয়োগকারীদের মূলধন (পুঁজি) ফিরেছে চার হাজার ৮৪২ কোটি টাকা, যেখানে আগের সপ্তাহে বিনিয়োগকারীরা পুঁজি হারিয়েছিলেন ১০ হাজার ২১০ কোটি টাকা।

দরপতনের পর সূচকের উত্থানের ফলে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে একটু স্বস্তি বইছে। বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ফ্লোর প্রাইস থাকছে নির্দেশনা জারির পর বাজারে সুবাতাস বইতে শুরু করেছে। ফলে  গেল সপ্তাহজুড়েই ইতিবাচক ধারায় পুঁজিবাজারে লেনদেন হয়েছে।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ১৫ আগস্ট এবং সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসব জন্মাষ্টমী উপলক্ষে ১৮ আগস্ট ছুটি থাকায় বিদায়ী সপ্তাহে তিন কর্মদিবস লেনদেন হয়েছে। আলোচিত সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মোট ৩৯৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ২৫৭টি কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ৪২টির, আর অপরিবর্তিত ছিল ৮৯টির।

অধিকাংশ কোম্পানির কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়ায় বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান সূচক আগের সপ্তাহের চেয়ে ৯২ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ২৪১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসইর অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস সূচক ২০ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৩৬৬ পয়েন্ট এবং ডিএস-৩০ সূচক আগের সপ্তাহের চেয়ে ২৫ পয়েন্ট বেড়ে দুই হাজার ২২০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

সূচক ও অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়ায় বিদায়ী সপ্তাহে বাজার মূলধন (পুঁজি) বেড়েছে চার হাজার ৮৪২ কোটি ৮২ লাখ ২৫ হাজার ৬৬১ টাকা।

সপ্তাহের শুরুতে বাজার মূলধন ছিল পাঁচ লাখ তিন হাজার ২৬৬ কোটি ৪০ লাখ ৭২ হাজার ৭৪২ টাকা। সপ্তাহের শেষ কর্মদিবস বুধবার লেনদেন শেষে মূলধন দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ আট হাজার ১০৯ কোটি ২২ লাখ ৯৮ হাজার ৪০২ টাকায়। অর্থাৎ মূলধন বেড়েছে দশমিক ৯৬ শতাংশ।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে দুই হাজার ৮৩৮ কোটি ৭০ লাখ ৮৪ হাজার ১৩৮ টাকা। আগের সপ্তাহে চার কর্মদিবসে লেনদেন হয়েছিল তিন হাজার ৫৮৪ কোটি পাঁচ লাখ ২৫ হাজার ৯৯২ টাকা। অর্থাৎ আগের সপ্তাহের চেয়ে কমেছে ৭৪৫ কোটি ৩৪ লাখ ৪১ হাজার ৮৫৪ টাকা, অর্থাৎ ২০ দশমিক ৮০ শতাংশ ।

একই অবস্থায় লেনদেন হয়েছে দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই)। বিদায়ী সপ্তাহে সিএসইর সার্বিক সূচক ২৪২ পয়েন্ট বেড়ে ১৮ হাজার ৩৬৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এ সময়ে লেনদেন হয়েছে ৫৮ কোটি ৬৩ লাখ ৩৫ হাজার ৫৮২ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৭৪ কোটি ২২ লাখ ৮৭ হাজার ৬৯৯ টাকা।  এর মধ্যে ১৮৪টি কোম্পানির  শেয়ারের  দাম বেড়েছে, কমেছে ৫৪টির আর অপরিবর্তিত ৮৭টির।

 এমআই/আরএইচ

Link copied