বিকেলে বিক্ষোভ কর্মসূচি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

১০ জুন ২০২১, ০৯:২৮


বিকেলে বিক্ষোভ কর্মসূচি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের

বিকেল ৩টায় ধানমণ্ডির শঙ্করে বিক্ষোভ সমাবেশ করবেন শিক্ষার্থীরা। ৯ জুন জাতীয় জাদুঘরের সামনে মানববন্ধন থেকে এ কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়। ছবি : ঢাকা পোস্ট

২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়ের ওপর ১৫ শতাংশ কর আরোপের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে দু’দিনের কর্মসূচি ঘোষণা দিয়েছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

আজ ৩টায় ধানমণ্ডির শঙ্করে বিক্ষোভ সমাবেশ ও শুক্রবার একই সময়ে রামপুরায় ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবেন তারা।

মঙ্গলবার (৯ জুন) জাতীয় জাদুঘরের সামনে মানববন্ধনে নতুন এ কর্মসূচির ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

বাজেটে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর আরোপিত ১৫ শতাংশ কর আরোপের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে ১০ জুন পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন শিক্ষার্থীরা। ৪ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনে সরকারকে এ আল্টিমেটার দেন তারা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেছেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১০ এ স্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সমূহ সম্পূর্ণ অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। ২০১০ সালে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ওপর ভ্যাট আরোপের পর সরকার থেকে বলা হয়েছিল, শিক্ষার্থীদের ভ্যাট দিতে হবে না, ভ্যাট দেবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু আমরা দেখেছি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের ওপর ভ্যাট চাপিয়ে দিয়েছে। পরে ছাত্র আন্দোলনের চাপে সরকার ভ্যাট প্রত্যাহার করতে বাধ্য হয়েছিল। কিন্তু এত বছর পর আবার নতুন আঙ্গিকে এর পরিবর্তে কর আরোপ করা হয়েছে ।

এই ভ্যাট বা কর যাই বলি না কেন, এর দায়ভার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ওপর পড়বে। এতে শিক্ষার ব্যয়ভার বেড়ে যাবে। এই সিদ্ধান্ত অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে।

শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রস্তাবিত ১৫ শতাংশ করের মাধ্যমে সরকার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে অবৈধ মুনাফা অর্জনের সুযোগ করে দিচ্ছে। সরকার নিজেদের ভুলগুলো ধামাচাপা দিতে এ কর আরোপ করেছে।

কর্মসূচি সম্পর্কে জানতে চাইলে ‘নো ভ্যাট অন এডুকেশন’ কর্মসূচির সমন্বয়ক ইউরোপিয়ান ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী মুক্ত রেজওয়ান ঢাকা পোস্টকে বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে ১৫% কর আরোপের পরের দিনই আমরা এর প্রতিবাদ করেছি। আমরা সরকারকে বলেছি এ কর বাস্তবায়ন হলে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফিসহ অন্যান্য খরচ বেড়ে যাবে। তাই আরোপিত কর প্রত্যাহারের জন্য ১০ জুন পর্যন্ত সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সরকার এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত জানায়নি। তাই আজ থেকে আমাদের কর্মসূচি শুরু হলো। কর প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলেও জানান তিনি।

এনএম/এনএফ 

Link copied