৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তির দাবিতে এনটিআরসিএ চেয়ারম্যানকে স্মারকলিপি

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৬ জানুয়ারি ২০২২, ০৩:৩২ পিএম


৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তির দাবিতে এনটিআরসিএ চেয়ারম্যানকে স্মারকলিপি

চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তির দাবিতে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) চেয়ারম্যান এনামুল কাদের খান বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনকারীরা।

রাজধানীর রমনা এলাকায় অবস্থিত এনটিআরসিএ অফিসে বুধবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে দ্বিতীয়বার এই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। একই দাবিতে গত সোমবারও স্মারকলিপি দিয়েছিলেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষক নিবন্ধনকারীদের পক্ষে এমএ আলম ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমরা এনটিআরসিএ চেয়ারম্যানকে এই স্মারকলিপি দিয়েছি। যার একটি কপি শিক্ষামন্ত্রী এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবকে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, তৃতীয় চক্রে ১৫ হাজার পদে কোনো আবেদনই পড়েনি। মন্ত্রণালয় থেকে মৌখিকভাবে ওই ১৫ হাজার পদের জন্য একটি বিশেষ বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে বলে শুনেছি। আমরা বিশ্লেষণ করে দেখেছি, এই ১৫ হাজারের মধ্যে ৮ হাজার নারী কোটা আর বাকিগুলো চরাঞ্চলের। যেগুলো আসলে বিজ্ঞপ্তি দিয়েও পূরণ করা যাবে না। সেজন্য আমরা ই-রিকুইজিশন নিয়ে দ্রুত ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে জানতে এনটিআরসিএ চেয়ারম্যান এনামুল কাদের খানের সেলফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

তবে স্মারকলিপি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এনটিআরসিএ সচিব ওবায়দুর রহমান।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ২০১৯ সালে ২ মে ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। আমরা শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার আবেদন করি ২৩মে। অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়ে লিখিত ও ভাইভা পরীক্ষা শেষে গত বছরের ১৭ অক্টোবর চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হয়।

মাত্র ৭ দিনের ভাইভা পরীক্ষা বাকি থাকায় আমরা ৩য় গণবিজ্ঞপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছিলাম। করোনা মহামারির কারণে আমাদের লিখিত ও ভাইভার ফল প্রকাশে অনেক দেরি হয়েছে। বর্তমানে আমাদের অনেকের বয়সই ৩৫ পার হয়ে গেছে বা কাছাকাছি রয়েছে। আমাদের শিক্ষক হওয়ার লালিত স্বপ্ন আজ ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। আমরা এখন ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তির আশায় দিন গুনছি। আমাদের ১৮ হাজার ৫০০ জনের পরিবারের অসহায়ত্ব ও বয়সের কথা বিবেচনা করে বর্তমানে সারা দেশের শূন্যপদের তথ্য নিয়ে যত দ্রুত সম্ভব ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বাধিত করবেন।

এএজে/এসকেডি

Link copied