Dhaka Post

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১

মিয়ানমারের নাগরিকদের প্রত্যাবর্তন আটকে দিল মালয়েশিয়ার আদালত

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪:২৩

মিয়ানমারের নাগরিকদের প্রত্যাবর্তন আটকে দিল মালয়েশিয়ার আদালত

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের ট্রাক-বাসে করে আশ্রয়প্রার্থীদের লুমুত বন্দরে নেওয়া হয়েছে

মিয়ানমারের সংখ্যালঘু বিভিন্ন সম্প্রদায়ের এক হাজার ২০০ নাগরিকের প্রত্যাবর্তন সাময়িকভাবে স্থগিতের নির্দেশ দিয়েছেন মালয়েশিয়ার একটি আদালত। দেশটির এই নাগরিকদের ফেরত পাঠানো হলে তাদের জীবন হুমকির মুখে পড়তে পারে বলে বেশ কয়েকটি মানবাধিকার সংস্থার আবেদনের পর মালয়েশিয়ার আদালতের এই নির্দেশ এল।

মঙ্গলবার সকালের দিকে মিয়ানমারের এই এক হাজার ২০০ বন্দিকে ফেরত পাঠানোর কথা ছিল। নাগরিকদের ফেরত আনতে মিয়ানমার সামরিক বাহিনী মালয়েশিয়ায় নৌবাহিনীর তিনটি জাহাজ পাঠিয়েছে।

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা বলছে, সংঘাত এবং নিপীড়ন থেকে পালিয়ে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমিয়েছিলেন মিয়ানমারের সংখ্যালঘু চিন, কাচিন এবং মুসলিম সম্প্রদায়ের ওই সদস্যরা। কিন্তু অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে তাদের আটক করে মালয়েশিয়ার আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। 

যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, মিয়ানমারের ওই নাগরিকদের ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া বুধবার সকাল ১০টা পর্যন্ত স্থগিত করেছেন মালয়েশিয়ার হাইকোর্ট। 

প্রত্যাবর্তন স্থগিতে বিচারবিভাগীয় পর্যালোচনার জন্য আদালতের কাছে যে আবেদন করা হয়েছে বুধবার সেটির শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

অ্যামনেস্টির মালয়েশিয়ার পরিচালক ক্যাটরিনা মালিয়ামভ এক বিবৃতিতে বলেছেন, সরকারকে অবশ্যই আদালতের আদেশের প্রতি শ্রদ্ধা দেখাতে হবে। একই সঙ্গে আজ একজনকেও ফেরত না পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

আন্তর্জাতিক এই মানবাধিকার সংস্থা বলছে, ফেরতের অপেক্ষায় থাকা ব্যক্তিদের মধ্যে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআরে নিবন্ধনকৃত তিনজন রয়েছেন। যদিও ইউএনএইচসিআর বলছে, তাদের কাছে নিবন্ধন করা কমপক্ষে ছয়জন ওই এক হাজার ২০০ জনের মধ্যে রয়েছেন। এছাড়া ১৭ জন শিশু রয়েছে; যাদের বাবা অথবা মায়ের যেকোনও একজন মালয়েশিয়ায় আছেন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সামরিকবাহিনী অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখলে নেওয়ায় ওই আশ্রয়প্রার্থীদের মালয়েশিয়া ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে গত সপ্তাহে এক প্রতিবেদনে জানায় ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স। 

শরণার্থীদের বর্তমান অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও ইউএনএইচসিআর মালয়েশিয়ায় এক বছরের বেশি সময় ধরে বন্দি ওই আশ্রয়প্রার্থীদের সঙ্গে সাক্ষাতের অনুমতি পায়নি। 

সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিম অথবা ইউএনএইচসিআরে নিবন্ধনকৃত শরণার্থীদের ফেরত পাঠানো হবে না বলে জানিয়েছে মালয়েশিয়া। মঙ্গলবার সকালের দিকে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের ট্রাক এবং বাসে করে আটক আশ্রয়প্রার্থীদের দেশটির পশ্চিমাঞ্চলের লুমুত বন্দরে নেওয়া হয়েছে বলে খবর দিয়েছে রয়টার্স। এই বন্দরে মিয়ানমারের নৌবাহিনীর জাহাজ নোঙ্গর করে রাখা হয়েছে।  

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা মিয়ানমারের আশ্রয়প্রার্থীদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে সমালোচনা করলেও মালয়েশিয়া এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

এসএস

Link copied