ফুসফুসে ক্যানসার হয়েছে কি না, জানা যাবে নিঃশ্বাস থেকেই

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৪৮ পিএম


ফুসফুসে ক্যানসার হয়েছে কি না, জানা যাবে নিঃশ্বাস থেকেই

প্রতীকী ছবি

ফুসফুসে ক্যানসার হয়েছে কিনা— জানতে অদূর ভবিষ্যতে আর সিটি স্ক্যান করানোর প্রয়োজন পড়বে না। যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা এমন এক প্রযুক্তি আবিষ্কার করেছেন, যার মাধ্যমে যে কারোর নিঃশ্বাস পরীক্ষার মাধ্যমেই জানা যাবে তার ফুসফুসের অবস্থা।

নতুন এই প্রযুক্তিটির নাম ভোলাটাইল অর্গানিক কম্পাউন্ড (ভিওসি)। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকি অঙ্গরাজ্যের লুইসভিল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এই প্রযুক্তির আবিস্কারক। আন্তর্জাতিক চিকিৎসা সাময়িকী পিএলওএস ওয়ানে এই গবেষণার পিআর রিভিয়্যু প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

লুইসভিল বিশ্ববিদ্যালয়ের এই গবেষক দলের অন্যতম সদস্য ড. মাইক ডেভিস এ সম্পর্কে মার্কিন সংবাদমাধ্যম মেডিকেল নিউজ টুডেকে বলেন, ‘ক্যানসার হলে মানুষের দেহ থেকে কিছু বিশেষ রাসায়নিক উপাদান নিঃসৃত হয়, যা পরে রক্তের সঙ্গে মিশে যায়। ক্যানসারে আক্রান্ত মানুষ নিঃশ্বাসের সঙ্গে সেসব রাসায়নিক উপাদান বায়বীয় আকারে বেরিয়ে আসে।’

‘ভিওসির মাধ্যমে কোনো ব্যক্তির নিঃশ্বাস পরীক্ষা করেই প্রাথমিকভাবে শনাক্ত করা সম্ভব, তার ক্যানসার হয়েছে কিনা। কেবল ফুসফুস নয়, এই প্রযুক্তি দিয়ে শরীরের যে কোনো অংশে ক্যানসার হলে একেবারে প্রাথমিক অবস্থাতেই এটি শনাক্ত করা সম্ভব হবে।’

‘ফলে একদিকে ক্যানসারের চিকিৎসা সহজ ও কম ব্যয়সাপেক্ষ হবে, অন্যদিকে রোগীদের সুস্থ হয়ে ওঠার সম্ভাবনাও বাড়বে।’

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থার (সিডিসি) তথ্য অনুযায়ী, প্রতি বছর দেশটিতে ক্যানসারের কারণে যত মানুষ মারা যান, তাদের অধিকাংশই ফুসফুসের ক্যান্সারের রোগী।

ফুসফুসের ক্যানসার শনাক্তের জন্য বর্তমানে সিটি স্ক্যান প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়, তবে এটির সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা হলো, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই প্রাথমিক অবস্থায় ক্যানসার শনাক্ত করা সম্ভব হয় না।

গবেষক দলের অপর সদস্য ও যুক্তরাজ্যের ক্যানসার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক রবার্ট রিনটোল বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনক ভাবে, এখন পর্যন্ত ফুসফুসের ক্যানসারে আক্রান্ত প্রায় সব রোগীরই নিয়তি মৃত্যু। প্রাথমিক পর্যায়ে এই ক্যানসার শনাক্ত করা সম্ভব হয় না বলেই এসব মৃত্যু ঘটে। যদি প্রাথমিক স্তরে এটি শনাক্ত করা সম্ভব হয়, সেক্ষেত্রে ৭৫ শতাংশেরও বেশি রোগীকে নিশ্চিত মৃত্যু থেকে রক্ষা করা সম্ভব।’

এসএমডব্লিউ

Link copied