একই তেলে বার বার রান্না করলে যেসব ক্ষতি হয়

Dhaka Post Desk

লাইফস্টাইল ডেস্ক

২২ মে ২০২২, ১০:০৫ এএম


একই তেলে বার বার রান্না করলে যেসব ক্ষতি হয়

অডিও শুনুন

আমাদের রান্নাবান্নার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই প্রয়োজন পড়ে তেলের। অনেক সময় কিছু ভাজার পরে থেকে যাওয়া তেল আমরা পুনরায় রান্নার কাজে ব্যবহার করি। কিন্তু এটি কি স্বাস্থ্যকর? সরিষা হোক কিংবা সয়াবিন, একই তেলে বার বার করা মোটেই স্বাস্থ্যকর নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, একই তেলে বার বার রান্না করলে তা শরীরের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

একই তেলে কতবার রান্না করা যাবে?

বিশেষজ্ঞরা জানান,  ট্রান্সফ্যাট উৎপন্ন হওয়া রোধ করতে একই তেল সর্বোচ্চ তিনবার ব্যবহার করা যেতে পারে। কোনো তেল পুনরায় ব্যবহার করা যাবে কি না তা নির্ভর করে, কোন তেলে কী ধরনের খাবার কতক্ষণ ধরে এবং কত তাপমাত্রায় ভাজা হচ্ছে তার ওপর। বেশি তাপমাত্রায় দীর্ঘ সময় তেলে ভাজা হলে তা একাধিকবার ব্যবহার করা নাও যেতে পারে।

দেখা দিতে পারে একাধিক সমস্যা

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ভাজার তেলের রাসায়নিক গঠন পাল্টে যেতে পারে। অনেক সময় কোনো কিছু ভাজার পর সেই যদি আবার রান্নার কাজে ব্যবহার করেন দেখা দিতে পারে কম্পাউন্ড টক্সিসিটি, লিপিড ডিপোজিশন, অক্সিডেটিভ স্ট্রেস, হাইপারটেনশন-সহ একাধিক সমস্যা।

অ্যাসিডিটি

বর্তমানে অ্যাসিডিটির সমস্যা ঘরে ঘরে। এর বড় কারণ হতে পারে রান্নায় ব্যবহৃত তেল। একই তেল বহুবার ব্যবহার করে খাবার তৈরি করলে তা অ্যাসিডিটির সমস্যা বাড়িয়ে দেয়। সেখান থেকে দেখা দেয় পেটে জ্বালা, গলা ও বুকে জ্বালার মতো সমস্যা। আপনার যদি আগে থেকেই গ্যাস্ট্রিক, বদ হজমের সমস্যা থেকে থাকে তবে ভাজা খাবার পুরোপুরি এড়িয়ে চলতে হবে।

হৃদরোগ

আপনি যখন রান্নার কাজে একই তেল বার বার ব্যবহার করেন তখন ট্রান্স ফ্যাটি অ্যাসিড অনেকটা বেড়ে যায়। কারণ অতিরিক্ত তাপমাত্রায় গরম করা হলে স্নেহ জাতীয় কিছু পদার্থ ট্রান্স ফ্যাটে রপান্তরিত হয়। শরীরে হৃদরোগ ডেকে আনার জন্য অন্যতম দায়ী হলো ট্রান্স ফ্যাট। তাই এ ধরনের অসুখ থেকে বাঁচতে রান্নার কাজে একই তেল বার বার ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

বাড়ায় ক্যান্সারের ঝুঁকি

ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে একই তেলে বার বার রান্না করা থেকে বিরত থাকতে হবে। কারণ একই তেল যদি একাধিকবার গরম করেন তবে তাতে বেড়ে যায় কার্সিওজেনিক উপাদান। এটি ক্যান্সার ও ইনফ্লেমেশনের ঝুঁকি অনেকটা বাড়িয়ে দেয়। ক্যান্সার থেকে বাঁচতে চাইলে খাবারের প্রতি থাকতে হবে সতর্ক। বিশেষ করে রান্নার কাজে ব্যবহৃত তেলের দিকে নজর দিন।

Link copied