মাস্ক পরার আগে ও পরে যা করবেন

Dhaka Post Desk

লাইফস্টাইল ডেস্ক

০৫ এপ্রিল ২০২১, ১৫:২৮

মাস্ক পরার আগে ও পরে যা করবেন

করোনাভাইরাস আবারও স্বরূপে ফিরে এসেছে। মাঝে কিছুটা কমে এলেও ফের বাড়তে শুরু করেছে এর সংক্রমণ। প্রতিদিন নতুন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, দীর্ঘ হচ্ছে মৃতের তালিকাও। এমন দুঃসময়ে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হোন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে এই সংক্রমণ থেকে দূরে থাকা সম্ভব হবে। গত এক বছরে আমাদের জীবনযাপনের তালিকায় যোগ হয়েছে নতুন অনেককিছু। তার মধ্যে মাস্ক অন্যতম। এখন বাইরে বের হলে মাস্ক পরা জরুরি। তবে দুঃখজনক বিষয় হলো, মাস্ক পরলেও এর গুরুত্ব সম্পর্কে অনেকেই উদাসীন। তাই মাস্ক পরার ক্ষেত্রে জেনে নিন কিছু করণীয়-

মাস্ক পরার আগে করণীয়

মাস্ক পরার আগে অবশ্যই সাবান ও পানি দিয়ে ভালোভাবে হাত ধুয়ে নিতে হবে। সাবান ও পানির ব্যবস্থা না থাকলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। এরপর দেখে নিন মাস্কটি পরিষ্কার আছে কি না। মাস্কে কোনোরকম ছিদ্র থাকলে তা সেটি ব্যবহার করবেন না। মাস্ক পরার সময় খেয়াল করুন যেন তাতে নাক, মুখ ও চিবুক ঢেকে যায়। তবে মাস্কের কারণে নিঃশ্বাস নিতে যেন সমস্যা না হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

মাস্ক পরার পরে করণীয়

মাস্ক কোনোভাবে ভিজে গেলে বা ময়লা হলে সেটি বাদ দিন বা বদলে নিন। মাস্ক মুখেই রাখুন, থুতনি বা কপালে রাখবেন না। মাস্ক পরে থাকা অবস্থায় বারবার সেটি স্পর্শ করবেন না। মাস্ক খুলে রাখার পর পরবর্তীতে আবার ব্যবহার করতে চাইলে পরিষ্কার কোনো ব্যাগে সংরক্ষণ করুন। পরিবারের সবার ব্যবহৃত মাস্ক একই জায়গায় রাখবেন না। আলাদা আলাদা রাখুন। মাস্ক পরার সময় এর  ইলাস্টিক বন্ধনী ধরে পরুন।

মাস্ক খোলার সময় করণীয়

মাস্ক খোলার আগেও দুই হাত ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর ইলাস্টিক বন্ধনী ধরে মাস্ক খুলতে হবে। মাস্কের মূল অংশে স্পর্শ করবেন না। এটি খোলার পরে আরেকবার হাত ধুয়ে বা স্যানিটাইজ করে নিন। মাস্ক যদি একবার ব্যবহারের উপযোগী হয় তবে তা ব্যবহারের পর ঢাকনাযুক্ত ময়লা রাখার পাত্রে ফেলুন। যদি একাধিকবার ব্যবহার করা যায় তবে প্রতিবার ব্যবহারের পরে ধুয়ে নিন।

মাস্ক পরার ক্ষেত্রে যেসব ভুল করবেন না

* মাস্ক মুখেই রাখুন, খুলে থুতনিতে রাখবেন না।
* মাস্ক যেন ঢিলাঢালা না হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন।
* মাস্কের কারণে নিঃশ্বাস নিতে সমস্যা হলে সামান্য ঢিলে করে দিন। 
* মাস্ক পরার পরে সেটি বারবার স্পর্শ করবেন না।
* ভেজা বা ময়লা মাস্ক পরবেন না।

ইউনিসেফের ওয়েবসাইট ​থেকে এইচএন/এএ

Link copied