জীবন থেকে ‘আনফ্রেন্ড’ করবেন যাদের

Dhaka Post Desk

লাইফস্টাইল ডেস্ক

১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০০ পিএম


জীবন থেকে ‘আনফ্রেন্ড’ করবেন যাদের

প্রতীকী ছবি

এমন কিছু মানুষ আছে যাদের আপনার জীবনের জন্য ভালো মনে হতে পারে কিন্তু তাদের এমন কিছু নেতিবাচক প্রভাব থাকে যা আপনি হয়তো বুঝতে পারেন না। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা কী চাই, কোন ধরনের মানুষ আমাদের জন্য ভালো বা  খারাপ সে সম্পর্কে ধারণা পেতে শুরু করি। আপনি কি এখনও ভুল মানুষের সঙ্গেই বন্ধুত্বে রয়েছেন? জেনে নিন পাঁচ ধরনের মানুষের সম্পর্কে, যাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব রাখবেন না

প্রতিযোগী স্বভাব

প্রতিযোগিতামূলক হওয়া ক্ষতিকর নয় কিন্তু এমন কিছু লোক আছে যারা সবসময় আপনাকে পরাজিত করার এবং আপনার সাথে প্রতিযোগিতা করার চেষ্টা করে। আপনার এমন লোকের প্রয়োজন নেই কারণ তাদের মধ্যে শক্তিশালী নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে এবং এটি আপনাকে নানাভাবে বিরক্ত করতে পারে।

খোঁটা দেওয়ার স্বভাব

এমন ধরনের মানুষ আছে যারা আপনার জন্য অল্পকিছু করলেও তার প্রতিদান আশা করতে থাকে। হয়তো তারা আপনাকে একবেলা দাওয়াত করে খাইয়েছে, এরপর আপনাকে বারবার সেকথা মনে করিয়ে দিতে থাকবে। এভাবে একবার কিংবা দুইবার বললে ঠিক আছে কিন্তু বারবার বলাটা স্বাভাবিক নয়। যারা আপনার জন্য কোনোকিছু করে তার খোঁটা দিতে থাকে, তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব রাখবেন না।

নেতিবাচক স্বভাব

যারা সারাক্ষণ গ্লাসের অর্ধেক খালি দেখেন তাদের থেকে দূরে থাকুন। কারণ এর একটি বড় নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে যা আপনি দূর করতে পারবেন না। যদি সেই ব্যক্তির সাথে কথা বললে তা সব সময় আপনাকে হতাশ বা অবসন্ন করে রাখে তবে বুঝবেন, তার সঙ্গে বন্ধুত্ব ছিন্ন করার সময় এসেছে।

অতিরিক্ত মুডি

সবাই কম বেশি মুডি হয়ে থাকে। কিন্তু আপনার বন্ধু যদি অতিরিক্ত মুডি হয়ে থাকে তবে মুশকিল। সে কখন কী চাইছে তা বুঝতে পারবেন না। আবার অনেক সময় একটুতেই সে আপনার ওপর মনক্ষুন্ন হতে পারে। কোনো কারণ ছাড়াই আপনার ফোন ধরা বন্ধ করে দিতে পারে বা কথা বলা বাদ দিতে পারে। এ ধরনের মানুষ জীবনে প্রয়োজন নেই। কারণ তাকে বুঝতে গিয়ে আপনার অনেকটা সময় নষ্ট হয়ে যাবে। তাই অতিরিক্ত মুডি ধরনের বন্ধু থাকলে তাকে জীবন থেকে বাদ দিন। 

আমি, আমি এবং আমি

আপনি কারও থেরাপিস্ট নন! যদি কেউ আপনাকে ফোন করে বা দেখা করে এবং তার জীবনের সমস্যাগুলো সম্পর্কে কথা বলে তাকে সাহায্য করুন। কিন্ত যখন আপনি আপনার সমস্যার কথা বলতে যান তখন সে এড়িয়ে চলে বা গুরুত্ব দেয় না। এমন হলে সেই বন্ধুত্ব বাতিল করুন। যেকোনো সম্পর্ক একটি দ্বিমুখী ট্রাফিক। বন্ধুত্বে উভয় বন্ধু জড়িত থাকে, কেউ একা এটি চালিয়ে যেতে পারে না।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে এইচএন

Link copied