আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়ে সাংবাদিকদের হয়রানি করা হচ্ছে

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

৩০ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১৩ পিএম


আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়ে সাংবাদিকদের হয়রানি করা হচ্ছে

আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়ে সাংবাদিকদের হয়রানি করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সম্পাদক পরিষদ সভাপতি মাহফুজ আনাম।

শনিবার (৩০ অক্টোবর) রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘৫০ বছরের বাংলাদেশ, গণমাধ্যমের অর্জন ও আগামীর চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। সম্পাদক পরিষদ এই সভার আয়োজন করে।

সাংবাদিকতার বিকাশের ক্ষেত্রে বিজ্ঞ আদালতের কাছে বিশেষ করে হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টের কাছে মাহফুজ আনাম অনুরোধ রেখে বলেন, ‘আপনারা মেহেরবানি করে একটু দেখুন, কিছু কিছু আইন আছে সেগুলো কীভাবে প্রয়োগ হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘আইনে স্পষ্ট আছে যে একটি ঘটনা কেন্দ্র করে কেবল একটি মামলাই হতে পারে। একমাত্র সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি মামলাটি করতে পারেন। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, একই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বাইরে অনেকেই মামলা করেছেন।’

‘এটা কী আইন অমান্য হলো না! সাধারণ নাগরিক ও সাংবাদিকদের রক্ষা করার দায়িত্ব কী আপনাদের নয়। যেখানে আইনে ব্যত্যয় ঘটিয়ে আমাদের হয়রানি করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, দুটি বিষয়কে রক্ষার করে সংবিধানে আইন করা হয়েছে। একটি হলো জুডিশিয়াল অপরটি গণমাধ্যম। সমাজ তার বিকাশ, বিবর্তন, উন্নয়নসহ সমস্ত অভিজ্ঞতা থেকে বুঝেছে স্বাধীন সাংবাদিকতা তাদের প্রয়োজন। আমার পেশা নৈতিকতার, সমাজ সেবার, আমার পেশা পাবলিক ইন্টারেস্ট সমন্বয় রাখার।

সভায় প্রেস কাউন্সিলের অবস্থা খুবই নিমজ্জিত রয়েছে বলে উল্লেখ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। তিনি সংবাদমাধ্যম এবং কর্মীদের অধিকার আদায়ে প্রেস কাউন্সিলকে শক্তিশালী করার ওপর গুরুত্ব দেন। একসঙ্গে গণমাধ্যমের সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ হিসেবে ভেতর ও বাইরের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন।

সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, সাংবাদিকদের বিভাজন ও দলীয় রাজনৈতিক প্রীতি থেকে বেরিয়ে আসাসহ নানা চ্যালেঞ্জ রয়েছে। প্রেস কাউন্সিলকে শক্তিশালী করে এমন জায়গায় নিয়ে যেতে হবে যেন সবার এর প্রতি আস্থা তৈরি হয়। হলুদ রঙ যেন সাংবাদিকতার পেশাকে না ধরে সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

পরিষদের অন্যতম সদস্য নুরুল কবীর বলেন, স্বাধীন ৫০ বছরে দেশের সাংবাদিকতাকে লড়াই করে চলতে হয়েছে। ৯০ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আমাদের সংবাদমাধ্যমে তুলনামূলক একটু ভালো সময় গেছে।

পরিষদের অন্যতম সিনিয়র সদস্য শ্যামল দত্ত বলেন, প্রেস কাউন্সিলকে কোনো না কোনোভাবে শক্তিশালী করতে হবে। সভায় পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদের সঞ্চালনায় অন্যতম সদস্য মুস্তাফিজ শফিসহ অনেকেই বক্তব্য রাখেন।

একে/এমএইচএস

Link copied