দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সরকারের পদত্যাগ চায় রাষ্ট্র সংস্কার

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ মে ২০২২, ১০:৫৯ পিএম


দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সরকারের পদত্যাগ চায় রাষ্ট্র সংস্কার

বিশ্বে যুদ্ধ হোক বা না হোক, খরা হোক বা না হোক বাংলাদেশে সব সময় সব দ্রব্যের মূল্য বেশি। বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যতম ব্যয়বহুল দেশ। ঢাকা পৃথিবীর অন্যতম ব্যয়বহুল শহর। তার ওপর যদি আমদানি পণ্যের সাপ্লাইচেইনে কোনো সমস্যা হয়, তাহলে তো আর কথাই নেই। ক্ষমতাসীন দলের লুটেরা ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট সে সংকটের অজুহাতে দ্রব্যমূল্য সাধারণের নাগালে বাইরে নিয়ে যায়। তাই দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ এই সরকারের পদত্যাগ দাবি করেছে রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলন।

শুক্রবার (১৩ মে) রাজধানীর তোপখানা রোডের নিজস্ব কার্যালয়ে ‘রাষ্ট্র-সিন্ডিকেটের আঁতাত এবং আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এক প্রতিবাদ সভায় এ দাবি জানান বক্তারা।

সভায় রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান জাতীয় সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ূম বলেন, একব্যক্তি কেন্দ্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থা জনগণের পক্ষে কখনো থাকতে পারে না। এমন সরকার দেশের কী হাল করতে পারে, তার সর্বশেষ উদাহরণ শ্রীলঙ্কা। এটা দেখেও যদি আমাদের সরকারের টনক না নড়ে তাহলে তাদের কপালেও একই দুর্গতি অপেক্ষা করছে।

তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্রকে জনগণের পক্ষে আনতে হলে বর্তমান সরকারকে অবশ্যই পদত্যাগ করতে হবে। একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে ৭০ সালের মতো সংবিধান সংস্কারের নির্বাচনের মাধ্যমে রাষ্ট্রে জনগণের মালিকানা প্রতিষ্ঠা করতে হবে। নয়ত গত ৫০ বছরের মতো কেবল সরকার বদলিয়ে আমাদের কোনো একটা সমস্যার সমাধান করা সম্ভব হবে না।

বক্তারা আরও বলেন, এ দেশের পাঁচ কোটি লোক বেকার, করোনার পর সাধারণ মানুষ এমনিতেই প্রায় সর্বস্বান্ত। আমরা সরকারকে রেশনের ব্যবস্থা করতে বলেছি, কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি করতে বলেছি, বেকারদের ভাতা দিতে বলেছি। কিন্তু এসব না করে এত দুর্যোগের মধ্যেও সরকার তেল, চাল, ডাল, জ্বালানি তেল, গ্যাস, পানি, বিদ্যুৎসহ প্রতিটি জিনিসের দাম বাড়িয়ে চলছে।

তারা এটা করতে পারছে, কারণ সরকারকে জনগণের কাছে কোনো জবাবদিহি করতে হয় না। এ অসহনীয় অবস্থার পরিবর্তন করতে চাইলে সরকারকে জনগণের কাছে জবাবদিহির ব্যবস্থা করতে হবে। জনগণের ভোটের অধিকার, জান-জবান-সম্মানের অধিকার, মৌলিক অধিকার, নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে, বলেন বক্তারা।

প্রতিবাদ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন— রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য দিদারুল ভূঁইয়া, নাইমুল ইসলাম নয়ন, সদস্য লিটন কবিরাজ, সাধনা মহল, এহসান আহমেদ, রেজোয়ান রহমান, সারোয়ার তুষার, অ্যাডভোকেট আবু বকর সিদ্দীক প্রমুখ।

এমএইচএন/এসএসএইচ

Link copied