সমন্বিত উদ্যোগে পর্যটন শিল্পকে এগিয়ে নিতে হবে : প্রতিমন্ত্রী

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৫ আগস্ট ২০২২, ০৬:৩২ পিএম


সমন্বিত উদ্যোগে পর্যটন শিল্পকে এগিয়ে নিতে হবে : প্রতিমন্ত্রী

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেছেন, আমাদের সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে পর্যটন শিল্পকে সামনে নিয়ে যেতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার উদ্যোগে আমরা কিছু কিছু কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) সোনারগাঁও হোটেল আয়োজিত সিটি ট্যুরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী উদ্বোধনের পর দুপুর ৩টা ৫০ মিনিটে সিটি ট্যুরের একটি বাস যাত্রা শুরু করে। ট্যুরের প্রথম যাত্রায় ১৩ জন বিদেশি নাগরিক অংশ নেন।

মাহবুব আলী বলেন, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ কেল্লা, বঙ্গবন্ধু মিউজিয়াম, পদ্মা সেতু এগুলো যেকোনো পর্যটকের কাছে ভালো লাগবে। আমাদের দেশে মুড়াপাড়া জমিদার বাড়ি একটি ঐতিহ্য। আমাদের দেশের প্রতিটি জেলায় ঐতিহ্য রয়েছে। 

তিনি বলেন, আমাদের নতুন প্রজন্মের বাঙালি যারা দেশের বাইরে থাকে, তারা যখন জানতে পারে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯১৩ সালে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন, তখন তারা গর্ববোধ করে। তারা তখন দেশে আসতে চায় এসব দেখতে। আমরা যদি সবকিছু ভালোভাবে ব্র্যান্ডিং করতে পারি, তাহলে অনেক পর্যটকই আমাদের দেশে আসবে।

তিনি আরও বলেন, কক্সবাজারে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে আমরা বাস চালাব, চিন্তা-ভাবনা করেছি। এর মধ্যেই কিন্তু সেখানে বাস চলাচল শুরু হয়ে গেছে। পঞ্চগড়ের সৌন্দর্য এক ধরনের, সিলেটের সৌন্দর্য আরেক ধরনের। সিলেট বিমানবন্দর থেকে শহরে যাওয়ার যে রাস্তা, এটি পৃথিবীর অন্য যেকোনো শহরের চাইতে সুন্দর রাস্তা। বিদেশিরা সিলেটের ওই রাস্তা দিয়ে গেলে আমাদের প্রশংসা করে। সুতরাং, আমাদের চতুর্দিক থেকে কাজ শুরু করতে হবে।

সিটি ট্যুর সম্পর্কে জানা যায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিকে ধারণ করে তার স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহাসিক স্থানগুলো দর্শনের জন্য প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেল বিশেষ এ সিটি ট্যুরের আয়োজন করেছে। 

এ সিটি ট্যুরে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা অংশ নিতে পারবেন। ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর বাসভবন এ ট্যুরের প্রধান আকর্ষণ। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও ঐতিহ্য বহনকারী ঢাকার অন্যান্য দর্শনীয় স্থান, যেমন- জাতীয় জাদুঘর, বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘর ও শহীদ মিনার এ ট্যুরে অন্তর্ভুক্ত। এসব দর্শনীয় স্থান থেকে পর্যটক এবং দর্শনার্থীরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বাংলাদেশের ইতিহাস ও স্বাধীনতা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

এ বিশেষ সিটি ট্যুরে বাংলাদেশি পর্যটকদের জন্য জনপ্রতি ৪ হাজার ৫০০ টাকা এবং বিদেশি পর্যটকদের জন্য জনপ্রতি ৫ হাজার টাকা টিকিটমূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এ মূল্যের মধ্যে ঐতিহাসিক এবং দর্শনীয় স্থান ভ্রমণের পাশাপাশি পর্যটকদের জন্য অনবোর্ড স্ন্যাক্সসহ দুপুরের অথবা রাতের খাবারের ব্যবস্থা রয়েছে। সিটি ট্যুরের টিকিট বুকিং করার জন্য +৮৮০১৭৭৭৭৫৮৩৭৯ এই নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন, হোটেলস ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. আমিনুর রহমান, প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও ঢাকার ভারপ্রাপ্ত মহাব্যবস্থাপক আসিফ আহমেদ প্রমুখ।

এমএইচএন/আরএইচ

Link copied