বৃষ্টি ভোগান্তি-বাড়তি ভাড়ার অভিযোগ : তবুও থেমে নেই ঈদযাত্রা

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

২৭ জুন ২০২৩, ০৯:০৪ এএম


আর একদিন পরেই পবিত্র ঈদুল আজহা। স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে রাজধানীবাসী ছুটছেন বাড়ির পানে। বৃষ্টি, যানজট, বাড়তি ভাড়া কোনো কিছুই আটকাতে পারছে না ঘরমুখো মানুষকে। 

মঙ্গলবার (২৭ জুন) সকালে রাজধানীর সবচেয়ে বড় বাস টার্মিনাল গাবতলী ও টেকনিক্যাল মোড় ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। এ সড়কের শ্যামলী থেকে গাবতলী পর্যন্ত যানজট ও সকালের বৃষ্টি ঈদযাত্রায় ভোগান্তি সৃষ্টি করেছে। তবে যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা তৎপর রয়েছেন।

বাবা-মায়ের সঙ্গে ঈদ করতে সিরাজগঞ্জ যাচ্ছেন আশিকুর রহমান। ঢাকায় একটি সুপারশপে চাকরি করেন তিনি। বাড়ি যাওয়ার জন্য তিনি অভি পরিবহনের বাসের টিকিট কেটেছেন। ৩৫০ টাকার টিকিট ৭০০ টাকা দিয়ে কিনতে হয়েছে অভিযোগ করে অশিক বলেন, ঈদ উপলক্ষ্যে ডাবল ভাড়া নিচ্ছে এই পরিবহনটি। তারপরও বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে পারব, এটাই বড় কথা।

বৃষ্টি মাথায় নিয়ে ধানমন্ডির বাসা থেকে স্বামী-দুই সন্তানসহ গাবতলী এসেছেন সাদিয়া খোন্দকার। উদ্দেশ বগুড়া গ্রামের বাড়িতে সবার সঙ্গে ঈদ উদযাপন করবেন। কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, সকাল ৮টায় গাড়ি। ৬টায় বাসা থেকে বের হয়েছি। শ্যামলী থেকে গাবতলী পর্যন্ত আসতে ৪০ মিনিট লেগেছে। সবাই মিলেমিশে ঈদ করতে পারব, এই খুশিতে বৃষ্টি, যানজটেও ভোগান্তি মনে হচ্ছে না। 

dhakapost

তবে ঈদযাত্রায় ডাবল ভাড়া নেওয়ার অভিযোগও রয়েছে ঘরমুখো মানুষের। নওগাঁগামী যাত্রী ওমর ফারুক ঢাকায় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তিনি বলেন, কিছুদিন আগেও ৭০০ টাকা ভাড়া দিয়ে নওগাঁ গিয়েছি। আজ এখানে এসে দেখি কোনো বাসই ১৪০০ টাকার নিচে টিকিট দিচ্ছে না। ভাড়া ডাবল করে দিয়েছে। দেখার কেউ নেই।

রংপুরগামী পরিবহনগুলোও ঈদকে কেন্দ্র করে ডাবল ভাড়া নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন অনেকে।

গাবতলী থেকে পাটুরিয়া-আরিচা ঘাটে সবচেয়ে বেশি চলাচলকারী সেলফি পরিবহনও ঈদকে কেন্দ্র করে ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে। ১৮০ টাকার ভাড়া বাড়িয়ে ৩০০ টাকা করেছে। জানতে চাইলে সেলফি পরিবহনের একটি বাসের হেলপার লিটন বলেন, এখন ঈদ। আগের কথা ভুলে যান। গেলে ৩০০ টাকা দিয়েই যেতে হবে।

সার্বিক বিষয়ে গাবতলীতে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট সৌরভ আহমেদ ঢাকা পোস্টকে বলেন, গতকাল রাতে গাবতলীতে যাত্রীদের ব্যাপক চাপ ছিল। আজ ভোর থেকেও মানুষ বাড়ির দিকে ছুটছে। যাত্রীদের ভোগান্তি দূর করতে আমরা ট্রাফিকের মিরপুর জোনের ডিসির নেতৃত্বে কাজ করে যাচ্ছি। 

তিনি বলেন, গাবতলীতে হাট থাকায় গরু বহন করা গাড়ি উভয়পাশ দিয়ে আসা-যাওয়া করছে। একারণে মাঝে মাঝে যানজট হচ্ছে। তবে যানজটমুক্ত রাখতে আমরা তৎপর রয়েছি।

এমএইচডি/জেডএস

Link copied