চট্টগ্রামে পরিবেশ দূষণের দায়ে ১৮ লাখ টাকা জরিমানা

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩৮ এএম


চট্টগ্রামে পরিবেশ দূষণের দায়ে ১৮ লাখ টাকা জরিমানা

চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ বোস্তামী থানায় বায়ু দূষণ ও অপরিশোধিত তরল বর্জ্যের মাধ্যমে পরিবেশ দূষণের দায়ে ৫টি প্রতিষ্ঠানকে ১৮ লাখ ২৫ হাজার ৫২০ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদফতর। 

বুধবার (১৩ অক্টোবর) পরিবেশ অধিদফতরের চট্টগ্রাম কার্যালয়ে শুনানি শেষে এ জরিমানা করা হয়। বিষয়টি ঢাকা পোস্টকে নিশ্চিত করেন পরিবেশ অধিদফতরের চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের পরিচালক মোহাম্মদ নূরুল্লাহ নূরী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন-১৯৯৫ (সংশোধিত ২০১০) এর ৭ ধারা মোতাবেক এ জরিমানা করা হয়েছে। তারা বায়ু দূষণ ও অপরিশোধিত তরল বর্জ্য দ্বারা পরিবেশ দূষণ করে আসছিলেন। বুধবার পরিবেশ অধিদফতরে শুনানি শেষে এ জরিমানা করা হয়েছে। 

১২ অক্টোবর পরিবেশ অধিদফতর মহানগর কার্যালয়ের জুনিয়র কেমিস্ট ছানোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে পরিদর্শক মনির হোসেন ও শাওন শওকতের সমন্বয়ে একটি এনফোর্সমেন্ট টিম নাসিরাবাদ এলাকায় অবস্থিত কারখানাগুলো পরিদর্শন করে। পরিদর্শনকালে তারা বায়ু দূষণ, অপরিশোধিত তরল বর্জ্য দ্বারা পরিবেশ দূষণ ও পরিবেশগত ছাড়পত্রবিহীন প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে এনফোর্সমেন্ট নোটিশ প্রদান করেন। এরপর বুধবার (১৩ অক্টোবর) শুনানি শেষে জরিমানা করা হয়েছ।

মোহাম্মদ নূরুল্লাহ নূরী বলেন, বায়েজিদের নাসিরাবাদ এলাকার বেনজ ইন্ডাস্ট্রিজ বাংলাদেশ লিমিটেড (স্টিল মিল) এটিপি (এয়ার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট) বন্ধ রেখে অতিরিক্ত ধোঁয়া নির্গমনের মাধ্যমে স্থানীয় এলাকার বায়ু দূষণসহ পরিবেশ ও প্রতিবেশের
ক্ষতিসাধন করছিল। এই জন্য তাদেরকে ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া  নাসিরাবাদ এলাকার সিএসএস করপোরেশনকে এটিপি বন্ধ রেখে অতিরিক্ত ধোঁয়া নির্গমনের মাধ্যমে স্থানীয় এলাকার বায়ু দূষণসহ পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতিসাধন করছিল। এজন্য তাদেরকে ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।  

এছাড়া নাসিরাবাদ এলাকার ইসলাম স্টিল এটিপি বন্ধ রেখে অতিরিক্ত ধোঁয়া নির্গমনের মাধ্যমে স্থানীয় এলাকার বায়ু দূষণসহ পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতিসাধন করে আসছিল। তাদেরকেও ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।  

এদিকে, টেক্সটাইল গেট এলাকার পপুলার ওয়াশিং কারখানা ইটিপি বন্ধ রেখে বাইপাস লাইনের মাধ্যমে অপরিশোধিত তরল বর্জ্য নির্গমনের মাধ্যমে পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতিসাধন করে আসছিল। শুনানি শেষে তাদেরকে ৮৬ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই এলাকার  হাজী ওয়াশিংকেও একই অপরাধে ৬৯ হাজার ১২০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।   

পরিবেশ অধিদফতরের আদেশ প্রতিপালনে ব্যর্থ হলে ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছেন মোহাম্মদ নূরুল্লাহ নূরী। 

কেএম/এইচকে 

Link copied