প্রায় চার বছর পর নিজ গাড়ি ব্যবহার করলেন খালেদা জিয়া

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৪৪ পিএম


প্রায় চার বছর পর নিজ গাড়ি ব্যবহার করলেন খালেদা জিয়া

নিজের সাদা জিপে চড়ে আজ হাসপাতালে যান খালেদা জিয়া/ ছবি : সংগৃহীত

দীর্ঘ প্রায় ৪ বছর পর নিজের সাদা জিপটি ব্যবহার করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে নিজ গাড়িতে চড়ে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে যান তিনি।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি দুদকের মামলার রায়ে খালেদা জিয়ার সাজা হয়। ওই দিন এ গাড়িতে করে পুরান ঢাকার বকশি বাজারে অস্থায়ী আদালতে যান খালেদা জিয়া। পরে মামলায় তারা সাজা হলে সেখান থেকে নাজিম উদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। দীর্ঘ ২৫ মাসের বেশি সময় কারা ভোগের পর তার পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার ৬ মাসের সাজা স্থগিত করে সরকার।

ওই দিন হাসপাতাল থেকে তার ভাই শামীম ইস্কান্দার তার সিলভার কালারের গাড়িতে করে গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় নিয়ে আসেন খালেদা জিয়াকে। এরপর কয়েক দফা চিকিৎসা এবং করোনা টিকা নিতে ভাইয়ের এই গাড়িতে করে হাসপাতালে যান খালেদা জিয়া। ফলে প্রায় ৪ বছর পর আজ মঙ্গলবার নিজের সাদা জিপটি ব্যবহার করেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

পায়ে ব্যথার কারণে দীর্ঘ দিন এ গাড়িটি ব্যবহার করতে পারেননি বিএনপি চেয়ারপারসন

বিএনপি চেয়ারপারসনের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানায়, কারাগারে থাকাকালে খালেদা জিয়ার পায়ের ব্যথা বেড়ে যাওয়ার কারণে তিনি হুইলচেয়ার ব্যবহার শুরু করেন। নিজের গাড়িটি অপেক্ষাকৃত উঁচু হওয়ায় ওঠানামা করা সম্ভব হতো না। তাই এতদিন এটি ব্যবহার করা থেকে বিরত ছিলেন খালেদা। কিন্তু হাসপাতালে আসা-যাওয়ার পথে নেতাকর্মীদের ভিড় এবং নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে এখন জিপটি পুনরায় ব্যবহার শুরু করেছেন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান ঢাকা পোস্টকে বলেন, ম্যাডাম অনেক দিন পর এ গাড়িতে চড়ে হাসপাতালে গেলেন। সম্ভবত এর আগে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারির সুস্থ শরীরে এ গাড়িতে চড়েছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিকেল ৪টার দিকে শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে যান বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি হাসপাতালের ১০বি ওয়ার্ডের ১০২০৪ নম্বর কেবিনে ভর্তি আছেন।

এএইচআর/এসকেডি

Link copied