স্পেনের জাতীয় জাদুঘরে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আনন্দ উৎসব

Dhaka Post Desk

মিরন নাজমুল, স্পেন প্রতিনিধি

১৫ জুন ২০২১, ০৪:৪১ এএম


স্পেনের জাতীয় জাদুঘরে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আনন্দ উৎসব

স্পেনের মাদ্রিদে অবস্থিত ‘রেইনা সুফিয়া’ আন্তর্জাতিক জাদুঘরের পরিচালনা কমিটির আমন্ত্রণে বাংলাদেশি মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলাসহ অন্যান্য দেশের ৩৫টি সামাজিক ও মানবাধিকার সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে আনন্দ উৎসবের আয়োজন করা হয়।

গত শনিবার (১২ জুন) ‘প্রবাসে আনন্দের এক দিন’ শিরোনামে এই আনন্দ উৎসবে যোগ দেয় বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা। 

দীর্ঘ এক বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত স্পেনের জনজীবনে পুনরায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার এ আনন্দ আয়োজনে ছিল বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের ঐতিহ্যময় গান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আয়োজনে ছিল নারীদের অংশগ্রহণে পিঠা প্রতিযোগিতা, সংগীত ও নাচ। উৎসবে ভরা ছিল নানা দেশের নানা স্বাদের খাবার। ছিল আফ্রিকান, এশিয়ান, আরবি ও স্প্যানিশ সংগীত।

গত শনিবার বিকেল ৪টায় রেইনা সুফিয়া জাদুঘর পার্ক পরিচালনা কমিটির তত্ত্বাবধানে আয়োজন করা অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাংলাদেশ, আলজেরিয়া, মরক্কো, কলম্বিয়াসহ ১৫টি দেশের অভিবাসী। অনুষ্ঠানে করোনা আক্রান্ত হয়ে যারা মৃত্যুবরণ করেছেন, তাদের আত্মার শান্তি কামনা করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। 

পরে অনুষ্ঠানে প্রবাসীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য দেন জাদুঘরের প্রধান পরিচালক ম্যানুয়েল বোরজ-ভিল্লে, পরিচালক আনা লঙ্গোনি, রাফায়েল পিমেন্টেল, মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোহাম্মদ ফজলে এলাহী, রেড ইন্টার লাভাপিসের পেঁপা তররেস, রেড সলিদাদের নিনেস, সেন্ট্রো দে ডোমেস্টিকর রাফায়েল, মাইতে, মারিয়া দে সোনিয়া প্রমুখ।

উক্ত অনুষ্ঠানে রেইনা সুফিয়া জাদুঘরের সদ্য অবসর নেওয়া পরিচালক আনা লঙ্গোনিকে বিদায় সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ সময় বিভিন্ন দেশ ও সংগঠনের পক্ষ থেকে তাকে প্রীতি পুরস্কার দেওয়া হয়।

প্রধান পরিচালক ম্যানুয়েল বোরজ-ভিল্লে প্রবাসীদের প্রশংসা করে জাদুঘরের বিভিন্ন কার্যক্রমে ওপর আলোচনা করেন। এছাড়া তিনি স্পেনের অর্থনীতিতে প্রবাসীদের বিশেষ অবদানের কথা উল্লেখ করে প্রবাসীদের প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানে মাদ্রিদে বসবাসকারী বাংলাদেশি কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোহাম্মদ ফজলে এলাহী, সাধারণ সম্পাদক রমিজ উদ্দিন সরকার, নারী নেত্রী আফরোজা রহমান, সাংবাদিক কবির আল মাহমুদ, তানিয়া সুলতানা ঝরনা এরিক, শাওন আহমদ, জাবেল, তেরেসা, দেলোয়ার হোসেন, আল আমিন পালোয়ান, জুলহাস উদ্দিন, মাহমুদা আক্তার, মামুন, গিয়াস উদ্দিন, ইসলাম উদ্দিন, ঈসা প্রমুখ।

ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোহাম্মদ ফজলে এলাহী বলেন, প্রবাসে নিজেদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ববোধ বাড়িয়ে তোলা এবং বিদেশে দেশের আবহমান সংস্কৃতির ঐতিহ্যকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। সেই সঙ্গে ভিনদেশিদের কাছে বাঙালির সংস্কৃতির ঐতিহ্য পৌঁছে দিতে হবে।

এ সময় বাংলাদেশি নারীনেত্রী আফরোজা রহমান অনুষ্ঠান নিয়ে তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, করোনা মহামারির পর এ রকম একটি সুন্দর ও আনন্দঘন এক বিকেল কাটল সবার। এ অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্যে তিনি রেইনা সোফিয়া জাদুঘর পরিচালনা কমিটিকে ধন্যবাদ জানান।

উল্লেখ্য, রেইনা সুফিয়া জাদুঘরকেন্দ্রিক ৩৫টি মানবাধিকার সংগঠন একত্র হয়ে অভিবাসীদের দাবিদাওয়া নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। গত ২০১৮ সাল থেকেই প্রতিবছর বিভিন্ন দেশ ও সংস্কৃতির মানুষদের নিয়ে আনন্দ উৎসবের আয়োজন করে রেইনা সুফিয়া জাদুঘর পরিচালনা কমিটি। শুধু গত বছর করোনার কারণে অনুষ্ঠানটি স্থগিত করা হয়েছিল।

ওএফ 

Link copied