রাশিয়ার মুসলিমদের গর্ব মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদ

Dhaka Post Desk

মুহাম্মদ ইলিয়াছ আরমান

১৩ মার্চ ২০২১, ০১:০৩ পিএম


রাশিয়ার মুসলিমদের গর্ব মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদ

রাশিয়ার মুসলিমদের গর্ব মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদ

আধুনিক স্থাপত্যশিল্পের দৃষ্টিননন্দন ও অনিন্দ্য সুন্দর এক উপহার মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদ। মস্কোর মুসলমানদের একশ পনের বছরের ভালো-মন্দ ও সবকিছুর সাক্ষী প্রাচীন এই মসজিদ।

মসজিদটির অবস্থান রাশিয়ার রাজধানীর প্রাণকেন্দ্রে। ১৯০৪ সালে ১৯ হাজার বর্গমিটার আয়তনে ছোট পরিসরে মসজিদটি নির্মিত হয়। এর আগে ১৯০২ সালে জায়গাটি ক্রয় করা হয়। ২০০৫ সালের ১১ সেপ্টেম্বর রুশ সরকার মসজিদের পুরাতন ভবন ভেঙে নতুন নকশায় মসজিদ নির্মাণ শুরু করে। ১৭০ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে এই সংস্কার ও পুননির্মাণ কাজ প্রায় ১০ বছর যাবত চলমান ছিল। অবশেষে ২০১৫ সালে ২৩ সেপ্টেম্বর রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করে।

Dhaka Post
শোভা-সুষমায় অনন্য মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদ

অনেক রাষ্ট্র ও ব্যক্তি এই ব্যয়বহুল মসজিদ নির্মাণে অংশগ্রহণ করে। তন্মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখ করতে হয় দাগিস্তানের বিলিনেয়ার সুলায়মান করিমভের নাম। তিনি প্রায় ১০০ মিনিয়ন ডলার এই মসজিদ নির্মাণে দান করেন। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে ৫০টি দেশের প্রায় ৫০০ জন আমন্ত্রিত মেহমানের অংশগ্রহণে মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদের ১১৫ বছর পূর্তি উৎযাপিত হয়।

২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে রাশিয়ায় আগত অনেক পর্যটক এই মসজিদে উপস্থিত হয়। সেসময় মসজিদ-কর্তৃপক্ষ তাদের জন্য ইসলাম পরিচিতিমূলক বিভিন্ন প্রোগ্রাম হাতে নেয়। তাদের কার্যক্রমে মুগ্ধ হয়ে অনেকেও ইসলাম গ্রহণ করে। এই সংবাদটি তখন ফলাও করে বিভিন্ন আর্ন্তজাতিক মিড়িয়ায় প্রচার হয়েছে।

Dhaka Post
জুমার সময় মুসল্লিদের উপস্থিতিতে আকীর্ণ হয়ে উঠে আশপাশের সব।

 

মসজিদটি বর্তমানে ছয় তলা বিশিষ্ট। একত্রে প্রায় দশ হাজার মানুষ নামাজ আদায় করতে পারে। নারীদের জন্য নামাজ আদায়ের পৃথক ব্যবস্থা রয়েছে। মসজিদের প্রধান মিনার দুইটি প্রায় ৭০ মিটার উঁচু আর গম্বুজটি ৪৬ মিটার উঁচু। মিনার ও গম্বুজ সজ্জিত করতে প্রায় ১২ টন সোনার পাত ব্যবহার করা হয়েছে।

ইসলামি স্থাপত্যশিল্পের আদলে বিভিন্ন চিত্রকর্ম ও ক্যালিগ্রাফির মাধ্যমে মসজিদের শোভাবর্ধন করা হয়। সাদা, সবুজ ও নীল রং ব্যবহার করে শিল্পকর্মগুলো রঙিন করা হয়। মসজিদের দেয়ালে ও ছাদে কোরআনের বিভিন্ন আয়াত লেখা হয়। মসজিদের মূল পয়েন্টে স্থাপিত ঝাড়বাতিটির দৈর্ঘ্য ৮ মিটার আর এর ওজন হলো প্রায় ১.৫ টন।

Dhaka Post
সপ্রতিভ-ভাস্বর মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদ।

মসজিদ প্রাঙ্গণে একটি ইসলামি জাদুঘর রয়েছে। তাতে রয়েছে হস্তাক্ষরে লিখিত পবিত্র কোরআনের প্রাচীন কপি, কোরআনবিষয়ক বিভিন্ন প্রাচীন চিত্রকর্ম, পবিত্র কাবার প্রাচীন গিলাফ ও অষ্টম হিজরিতে রূপায় লিখিত কোরআনের একটি কপি রয়েছে। কাঁচের ডিসপ্লেতে সেটি প্রদর্শিত হয়।

দুই ঈদের জামাতে ও রমজানের তারাবিতে বিপুল সংখ্যক মুসল্লি সমবেত হয় মস্কো গ্র্যান্ড মসজিদে। তখন মসজিদের আশেপাশের সব রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। প্রায় দেড় লক্ষাধিক মুসল্লি একসঙ্গে নামাজ আদায় করে দুই ঈদের জমাতে।

Dhaka Post
ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে রাশিয়ায় আগত অনেক পর্যটক এই মসজিদে উপস্থিত হয়।

মসজিদের অন্যান্য কার্যক্রম
দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের আয়োজন মসজিদটি নানান কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। সেগুলো হলো- এক. অমুসলিমদের জন্য সাপ্তাহিক ইসলাম পরিচিতি মূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন। দুই. ইসলামি শরিয়তের আলোকে বিয়ে সম্পন্ন ও রেজিস্টার করা। তিন. মুসলমানদের প্রশ্নের আলোকে শরয়ি সমাধান তথা ফতোয়া প্রদান। চার. আরবি ভাষা শিক্ষা কোর্স। পাঁচ. পবিত্র কোরআনের বিশুদ্ধ তিলাওয়াতের কোর্স। ছয়. হালাল খাবার পরিবেশনের উদ্দেশ্যে মসজিদ এলকায় একটি রেস্তোঁরা পরিচালনা।

লেখক : মুহাদ্দিস, ইসলামিয়া মহিলা কামিল মাদরাসা, কক্সবাজার।

Link copied