মধ্যরাতেও ইবাদতে মশগুল মুসল্লিরা

মধ্যরাতেও রাজধানীসহ সারাদেশের প্রায় প্রতিটি মসজিদেই নামাজ, কুরআন তেলাওয়াত আর তসবিহ পাঠে মশগুল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা...

ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল মুসল্লিরা

ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যে পালিত হচ্ছে পবিত্র লাইলাতুল কদর বা শবে কদর। এ রাতে ইবাদত-বন্দেগিতে...

আজ কি পবিত্র শবে কদর?

শবে কদরের বছরের সেরা রাত। এই রাতের তুলনা কেবল এই রাত। অন্য দিকে আজ লাইলাতুল কদরের সর্বাধিক সম্ভাবনাময় (২৭ তম) রাত। ফলে কোনো অবহেলা ও গাফিলতি যেন না হয়...

শবে কদরে যেসব ইবাদত ও আমল করবেন

লাইলাতুল কদর বা শবে কদর মুসলিম জাতির প্রতি আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহ। আল্লাহ এই রাতকে বিশেষ মর্যাদা দান করেছেন। আল্লাহর রাসুল (সা.) রমজানের শেষ দশকে লাইলাতুল কদর...

শবে কদর কি ২৭ রমজানেই?

লাইলাতুল কদর কি ২৭ রমজান? আমাদের দেশে ২৭ রমজানকে শবে কদর বলে আখ্যা দেওয়া হয়। মূলত এ কথাটি একদম উড়িয়ে দেওয়ার মতো না। তবে এরপরও শুধু এই রাতকেই লাইলাতুল কদর হিসাব

পবিত্র শবেকদরের রাতে দেশের অগ্রগতি কামনায় প্রার্থনার আহ্বান

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ পবিত্র শবেকদরের রজনীতে দেশের অব্যাহত অগ্রগতি ও কল্যাণ কামনা করে পরম করুণাময় আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করার জন্য দেশবাসীর প্রতি...

পবিত্র শবেকদর উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র লাইলাতুল কদর উপলক্ষে দেশবাসীসহ বিশ্বের সব মুসলমানকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন...

পবিত্র লাইলাতুল কদর আজ

পবিত্র লাইলাতুল কদর বা শবে কদর আজ। বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) সন্ধ্যার পর থেকে শুরু হবে শবে কদরের রজনী...

শবে কদর কি প্রতি বছর একই দিনেই হয়?

শবে কদর বছরের শ্রেষ্ঠ রাত। এই রাত হাজার বছরের চেয়ে উত্তম। শবে কদর আসলে কোন্ রাত— এ বিষয়ে বিভিন্ন হাদিস সামনে রেখে শীর্ষ মুহাদ্দিস ইমামগণ বিভিন্ন মতামত দিয়েছেন।

শবে কদর যেভাবে কাটাবেন

শবে কদরের বছরের সেরা রাত। এই রাতের তুলনা হয় না। শবে কদরে ইবাদত করলে ৮৪ বছর ৪ মাসে ইবাদত করার সওয়াব। কিন্তু শবে কদরের নির্দিষ্ট কোনো ইবাদত ও আমল নেই।

শবে কদরের গুরুত্ব ও ফজিলত

রমজানের পুরো মাস জুড়ে বিরাজ করে রহমত, বরকত ও ক্ষমার ঘোষণা। তবে এ মাসে রয়েছে বিশেষ এক মহিমান্বিত রজনী লাইলাতুল কদর। আর লাইলাতুল কদর হাজার বছরের চেয়ে শ্রেষ্ঠ।

লাইলাতুল কদর চেনার ৫টি সহজ উপায়

লাইলাতুল কদর বা শবে কদর বছরের শ্রেষ্ঠ রাত। এই রাত হাজার বছরের চেয়ে উত্তম। রমজানের শেষ দশকের কোনো এক রাতে এই পবিত্র রজনী। নির্দিষ্ট করে লাইলাতুল কদর চিহ্নিত করা.

শবে কদর কবে?

পবিত্র রমজানুল মুবারক বছরের শ্রেষ্ঠতম সময়। আর রমজানের সর্বাধিক ফজিলতপূর্ণ দিন হলো শেষ ১০ দিন। কারণ, শেষ দশকেই রয়েছে পবিত্র শবে কদর। বিশেষ কারণে শবে কদরের দিন...

পবিত্র শবে কদর ২৮ এপ্রিল দিবাগত রাতে  

আজ থেকে শুরু হয়েছে রমজান মাস। বছর ঘুরে মুসলিম উম্মাহর মাঝে আবার ফিরে এসেছে রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের এই মাস। 

শবে কদর যে কারণে এত বেশি মর্যাদাপূর্ণ

পবিত্র কোরআন বিশ্বমানবতার জন্য পূর্ণাঙ্গ জীবনবিধান। কোরআনের সব বিধি-বিধান আর রাসুল (সা.) তার জীবদ্দশায় বাস্তবে অনুসরণ করেছেন। ফলে পবিত্র কোরআন অবতীর্ণ হওয়া সমগ্র মানবজাতির জন্য এক বড় নিয়ামত।

শবে কদরের ৩ আমল

শবে কদর বা লাইলাতুল কদর— বছরের সর্বশ্রেষ্ঠ রাত। ২৬ রমজান শেষে যে রাত আসে— তা আমাদের দেশে কদরের রাত হিসেবে পরিচিত। যদিও এই রাত শবে কদর হওয়ার নিশ্চিত কোনো আলামত নেই। তবুও সাহাবায়ে কেরামের আমল ও হাদিসবিশারদদের মত থাকার কারণে এই রাতকে অবহেলা করারও কোনো সুযোগ নেই।

শবে কদরে বিয়ের ধুম!

প্রতিবছর রমজানের ২৬ তারিখ দিনগত রাতে পৃথিবীর বহু দেশেপবিত্র শবে কদর পালিত হয়। ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্য ও ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে বিশ্বব্যাপী পালন করা হয় পবিত্র শবে কদর। মুসলমানদের কাছে কদরের রাতের গুরুত্ব অপরিসীম। কোরআন-হাদিসে এই রাতকে অত্যন্ত পুণ্যময় কলা হয়েছে।

হাজার রাতের চেয়ে উত্তম

শবে কদরের আমল ও ফজিলত

আজ আমাদের দেশে পবিত্র রমাজনের ২৬ রোজা চলছে। আজকের রাতটি (দিন পরবর্তী) ২৭ রমজানের রাত। এ রাত ‘লাইলাতুল কদর’ বা ‘শবেকদর’ হিসেবে পরিচিত। তাই এ রাতকে বিশ্বের মুসলমানরা অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে পালন করেন। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তাআলা এ রাতকে হাজার মাসের চেয়েও উত্তম বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

শবে কদরে যে দোয়া করতে বলেছেন নবীজি (সা.)

শবে কদর বছরের সর্বশ্রেষ্ঠ রাত। তবে আমাদের দেশে অনেকের কাছে ২৬ রমজান দিনগত রাত শবে কদর হিসেবে পরিচিত। যদিও এই রাত শবে কদর হওয়ার নিশ্চিত কোনো আলামত নেই। তবুও এই রাতের ব্যাপারে সাহাবায়ে কেরাম ও হাদিসবিশারদদের বিভিন্ন মত থাকার অবহেলাও কোনো সুযোগ নেই।

শবে কদরে যে আমল করবেন

‘শবে কদর’ বা ‘লাইলাতুল কদর’। বছরের সর্বশ্রেষ্ঠ রাত। ২৬ রমজান শেষে যে রাত আসে— তা আমাদের দেশে কদরের রাত হিসেবে পরিচিত। যদিও এই রাত শবে কদর হওয়ার নিশ্চিত কোনো আলামত নেই। তবুও এই রাতের ব্যাপারে সাহাবায়ে কেরাম ও হাদিসবিশারদদের বিভিন্ন মত থাকার অবহেলাও কোনো সুযোগ নেই।

Link copied