চবিতেও উত্তীর্ণ হতে পারেননি বেলায়েত

Dhaka Post Desk

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক, চবি

২৮ আগস্ট ২০২২, ০৪:১১ পিএম


চবিতেও উত্তীর্ণ হতে পারেননি বেলায়েত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়েও (চবি) উত্তীর্ণ হতে পারেননি ৫৫ বছর বয়সী বেলায়েত শেখ। শনিবার (২ আগস্ট) রাত সাড়ে ১১টায় চবির ‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়। এতে মেধা তালিকায় নামে আসেনি বেলায়েত শেখের। 

বেলায়েত শেখ ঢাকা পোস্টকে বলেন, প্রস্তুতি মোটামুটি ভালো ছিল। তবে চবির ডি ইউনিটে প্রশ্ন কিছুটা কঠিন হয়েছে। আমি ৭২টি উত্তর দিতে পেরেছি। তবুও পাস করতে পারিনি। এখন তো প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ই ভরসা। সাংবাদিকতা বিভাগেই পড়ার স্বপ্ন। কিন্তু অর্থনৈতিক সমস্যা তো আছেই।

তিনি আরও বলেন, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একটা প্রস্তাব পেয়েছি সেখানে ভর্তির। কিন্তু পরিবার রেখে দূরে অবস্থান করা কঠিন। সেজন্য ঢাকার দিকে চিন্তা করছি। বাকিটা আল্লাহ ভরসা।

জানা যায়, বেলায়েত চবির সমাজ বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ডি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা পরীক্ষা দেন। তার রোল নম্বর ছিল ৪২২৩৬২। প্রকাশিত ফলাফলে ১০০ নম্বরের মধ্যে পাস মার্ক তুলতে পারেননি তিনি। যেখানে পাস মার্ক ছিলো ৪০। ডি ইউনিটে ইউনিটে ২৮ হাজার ৬৭৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছেন ৪ হাজার ৯২২ জন।

এর আগে গত ২৬ জুলাই রাবির ‘এ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দেন বেলায়েত। এর আগে ১১ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটে পরীক্ষা দেন তিনি। তবে উত্তীর্ণ হতে পারেননি।

১৯৬৮ সালে জন্ম নেওয়া বেলায়েতের ছোটবেলা থেকেই পড়ালেখার প্রতি ছিল আগ্রহ। প্রবল আগ্রহ থাকলেও দারিদ্র্যের কারণে কূল পেয়ে উঠেননি তিনি। ১৯৮৩ সালে এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন বেলায়েত। কিন্তু নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে উচ্চশিক্ষা নেওয়ার স্বপ্ন জলাঞ্জলি দিতে হয় তাকে। ২০১৭ সালে ৫০ বছর বয়সে ভর্তি হন নবম শ্রেণিতে।

এ বছর জিপিএ-৪.৪৩ পেয়ে বেলায়েত ঢাকা মহানগর কারিগরি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি-ভোকেশনাল) পাস করেন। এর আগে ২০১৯ সালে বাসাবোর দারুল ইসলাম আলিম মাদরাসা থেকে জিপিএ-৪.৫৮ পেয়ে দাখিল (ভোকেশনাল) পাস করেন।

রুমান/আরএআর

Link copied