ইবিতে ছাত্রী নির্যাতন : হল ছাড়লেন বাকি ৩ অভিযুক্ত

Dhaka Post Desk

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক, ইবি

০১ মার্চ ২০২৩, ০৭:৫২ এএম


ইবিতে ছাত্রী নির্যাতন : হল ছাড়লেন বাকি ৩ অভিযুক্ত

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ছাত্রী নির্যাতনের ঘটনায় হল প্রশাসনের নির্দেশে অভিযুক্ত তিন ছাত্রী স্থায়ীভাবে হল ছেড়েছেন। মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দিনের বিভিন্ন সময়ে তারা হল ছাড়েন বলে জানিয়েছেন হলের শাখা কর্মকর্তা হামিদা খাতুন।

হল ছেড়ে যাওয়া তিন শিক্ষার্থী হলেন- আইন বিভাগের ইসরাত জাহান মীম, চারুকলা বিভাগের হালিমা আক্তার ঊর্মি এবং ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের মাওয়াবিয়া জাহান। 

হল ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে হল ছাড়েন ছাত্রী নির্যাতনে অভিযুক্ত ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০২০-২১ সেশনের মাওয়াবিয়া। হলের গণরুম প্রজাপতি-১ এ থাকতেন তিনি। বাবার সঙ্গে তিনি ক্যাম্পাস ছেড়েছেন। পরে দুপুরে নিজের মালপত্র গুছিয়ে হল ছাড়েন একই অভিযোগে অভিযুক্ত আইন বিভাগের একই সেশনের ইসরাত জাহান মীম। তারা উভয়ই ক্যাম্পাস ছেড়ে মেসে উঠেছেন বলে জানা গেছে। এরপর হল ছাড়েন ফাইন আর্টস বিভাগের ২০২০-২১ সেশনের ছাত্রী হালিমা আকতার ঊর্মী। তিনিও ক্যাম্পাস ছেড়ে মেসে উঠেছেন। 

এর আগে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় হাইকোর্টের নির্দেশে হল ছাড়েন ছাত্রী নির্যাতনের মূলহোতা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সানজিদা চৌধুরী অন্তরা ও ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০২০-২১ সেশনের তাবাসসুম ইসলাম। তবে তারা স্থায়ীভাবে হল ছেড়েছেন কিনা এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

হলের শাখা কর্মকর্তা হামিদা খাতুন বলেন, মঙ্গলবার সকালে মাওয়াবিয়া ও দুপুরে মীম হল ছেড়েছে। হল ছাড়ার নির্দেশনার কপি তাদের কাছে পৌঁছানোর জন্য রুমে গিয়ে মীমকে প্রস্তুতি নিতে দেখেছিলাম। তবে মাওয়াবিয়াকে রুমে পাইনি। তার রুমমেটরা জানিয়েছে সে সকালে হল ছেড়েছে। তবে ঊর্মী আগেই হল ছেড়েছেন। প্রভোস্ট স্যারের নির্দেশনায় তাকে ডাকতে গেলে রুমে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. শামসুল আলম বলেন, হাইকোর্টের নির্দেশনা পাওয়া মাত্রই অন্তরা ও তাবাসসুম ওই দিন সন্ধ্যায় হল ত্যাগ করে। পরে হলের পক্ষ থেকে আবাসিকতা বাতিলের সিদ্ধান্ত জানালে মঙ্গলবার বাকি সবাই হল ছেড়ে দেয়। বুধবার বেলা ১২টার মধ্যে তাদের হল ত্যাগের নির্দেশনা ছিল।

হল প্রশাসন কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পর্যালোচনা সাপেক্ষে সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) পাঁচ অভিযুক্তের আবাসিকতা ও দেশরত্ন শেখ হাসিনা হল সংযুক্তি বাতিল করেন হল প্রভোস্ট। এ সময় বুধবার (১ মার্চ) বেলা ১২টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়। এর প্রেক্ষিতে নির্ধারিত সময়ের আগেই মঙ্গলবার দিনের বিভিন্ন সময়ে তারা হল ত্যাগ করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১২ ফেব্রুয়ারি রাতে দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলের গণরুমে ডেকে রাত ১১টা থেকে রাত ৩টা পর্যন্ত নবীন ছাত্রী ফুলপরী খাতুনকে বিবস্ত্র করে মারধর ও শারীরিকভাবে নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সানজিদা চৌধুরী অন্তরা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। নির্যাতনের পরদিন ভয়ে ক্যাম্পাস থেকে পালিয়ে যান ওই ছাত্রী।

রাকিব হোসেন/আরকে 

Link copied