টাকা নিয়ে চাকরি না দেওয়ার অভিযোগে এমপিপুত্রের নামে মামলা

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া 

১০ জুন ২০২২, ০১:৪০ পিএম


টাকা নিয়ে চাকরি না দেওয়ার অভিযোগে এমপিপুত্রের নামে মামলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চাকরি দেওয়ার কথা বলে সাড়ে ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস ছাত্তার ভূঁইয়ার ছেলে মাইনুল হাসান তুষারের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সদর) আফরিন আহমেদ হ্যাপীর আদালতে হোসনা আক্তার নামে এক নারী মামলাটি করেন। 

বিচারক মামলাটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালে সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মাস্টার রোলে অফিস সহায়ক পদে চাকরির জন্য ওই উপজেলার গুনারা গ্রামের মৃত রহমত হোসেনের মেয়ে হোসনা আক্তার আবেদন করেন। চাকরির পূর্ণ নিশ্চয়তার জন্য তিনি সংসদ সদস্যের ছেলে মাইনুলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। চাকরি পাইয়ে দেওয়ার জন্য মাইনুল সাড়ে ৩ লাখ টাকা দাবি করেন হোসনার কাছে।
পরে একই বছরের ৫ জুলাই জেলা শহরের মেড্ডা সবুজবাগে মাইনুলের হাতে চাকরির জন্য সাড়ে ৩ লাখ টাকা দেন হোসনা।

এজাহারে আরও বলা হয়, টাকা পাওয়ার পর মাইনুল তার বাবার সিল ও স্বাক্ষরসহ সুপারিশ করা একটি দরখাস্ত হোসনা আক্তারের কাছে দিয়ে তা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে দিতে বলেন এবং সিভিল সার্জনের নম্বর দিয়ে যোগাযোগ করতে বলেন। তবে অফিস সহায়ক পদে সুপারিশকৃত আবেদন জমা দেওয়ার পরও হোসনার চাকরি হয়নি। পরে লোকজন নিয়ে তুষারের বাসায় গিয়ে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি তা অস্বীকার করেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলম জানান, আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলেছেন।

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে মাইনুল হাসান তুষার বলেন, আমার বিরুদ্ধে যিনি মামলা করেছেন তার নাম এই প্রথম শুনলাম। আমাকে ও আমার বাবাকে রাজনৈতিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে মিথ্যা এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত একটি মামলা করেছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরানুল ইসলাম জানান, মামলার কাগজপত্র আদালত থেকে এখনো থানায় আসেনি। কাগজপত্র পাওয়ার পর আদালতের নির্দেশনা মতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজিজুল সঞ্চয়/আরআই

Link copied