স্ত্রীকে হত্যার পর রক্তমাখা ছুরি নিয়ে বসেছিলেন স্বামী

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৭:৫৪ পিএম


স্ত্রীকে হত্যার পর রক্তমাখা ছুরি নিয়ে বসেছিলেন স্বামী

গ্রেপ্তার আবদুর রব

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় গলা কেটে স্ত্রীকে হত্যার পর রক্তমাখা ছুরি হাতে ঘরে বসেছিলেন স্বামী। জাতীয় জরুরি সেবার ৯৯৯ নম্বরে খবর পেয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের সাদেকপুর গ্রামের ওয়ালি ব্যাপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত তাহমিনা আক্তার মিনা (৫৫) ওই বাড়ির আবদুর রব বাবুলের স্ত্রী। তিনি দুই ছেলের জননী। 
গ্রেপ্তার আবদুর রব গাড়িচালক। পারিবারিক কলহের জরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় জরুরি সেবা (৯৯৯) নম্বরের পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার ঢাকা পোস্টকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আনোয়ার সাত্তার বলেন, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ পরিচালিত জাতীয় জরুরি সেবার ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে জানানো হয়; সেনবাগের কাবিলপুর ইউনিয়নের সাদেকপুর গ্রামে এক নারীকে গলা কেটে হত্যা করেছেন তার স্বামী। হত্যার পর রক্তমাখা ছুরি হাতে ঘরের ভেতরে বসে আছেন। প্রতিবেশীরা ভয়ে কাছে যাওয়ার সাহস পাচ্ছেন না।

তিনি বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি সেনবাগ থানার ডিউটি অফিসারকে জানানো হয়। সঙ্গে সঙ্গে ওই বাড়িতে গিয়ে আবদুর রবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল বাতেন মৃধা বলেন, ওই নারীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যায় ব্যবহৃত ছুরিটি উদ্ধার করা হয়েছে।

সেনবাগ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাইফুল বলেন, রক্তমাখা ছুরিসহ আব্দুর রবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে মানসিকভাবে অসুস্থ মনে হচ্ছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে জেনেছি। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

এমএসি/এএম

Link copied