৯ বছরের প্রেম, বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে কলেজছাত্রী

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, মাদারীপুর

১০ আগস্ট ২০২২, ০৬:৫৭ পিএম


৯ বছরের প্রেম, বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে কলেজছাত্রী

প্রেমিক আমিনুল হাওলাদার

মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার শিরখারা ইউনিয়নের চরঘুন্সী এলাকায় বিয়ের দাবিতে তিন দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করছেন এক কলেজছাত্রী। প্রেমিক বিয়ে না করলে আত্মহত্যা করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। এ নিয়ে এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়েটির বাড়ি মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার শোলপুর গ্রামে। তিনি উপজেলার কবিরাজপুর ডিগ্রি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। বিয়ের দাবিতে গত তিন দিন ধরে তিনি উপজেলার শিরখারা ইউনিয়নের চরঘুন্সী এলাকার মৃত তারেক হাওলাদারের ছেলে প্রেমিক আমিনুল হাওলাদারের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

মেয়েটির পরিবার জানায়, ২০১৩ সালে অষ্টম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় মেয়েটির সঙ্গে পরিচয় হয় কলেজপড়ুয়া আমিনুল হাওলাদারের। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ২০১৬ সালে মেয়েটিকে অন্য জায়গায় জোড় করে বিয়ে দেয় পরিবার। বিয়ের এক মাস না যেতেই প্রেমিক আমিনুলের জন্য মেয়েটি তার স্বামীকে তালাক দেন। এরপর প্রেমের সম্পর্ক আরও গভীর হতে থাকে। পরে আমিনুল ওই বছরই ইতালি চলে যায়। প্রেমিকার প্রয়োজনীয় খরচ বহনের দায়িত্ব নেন আমিনুল। ব্যাংকের মাধ্যমে টাকাও পাঠান। দুই পরিবারের মাঝে সখ্য গড়ে ওঠে। চলতি বছরের ২ আগস্ট দেশে আসেন আমিনুল। কিন্তু তার পরিবার অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক করে। এ খবর পেয়ে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেন ওই কলেজছাত্রী। 

এদিকে কোনো অবস্থাতেই ওই মেয়েকে মেনে নিতে নারাজ আমিনুলের পরিবার। আমিনুলের ভাবি লতা আক্তার ঢাকা পোস্টকে বলেন, কারো সঙ্গে প্রেম করলে তার অনেক প্রমাণ থাকে। কিন্তু তাদের প্রেমের কোনো প্রমাণ নেই। আমরা তাকে মেনে নিতে পারব না। আমিনুলের অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক হয়েছে।

অনশনরত ওই কলেজছাত্রী ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমি বাড়িতে অবস্থান করার পর গা ঢাকা দিয়েছে আমিনুল। আগামী শুক্রবার আমিনুলের অন্য জায়গায়  বিয়ে হওয়ার কথা। আমার সঙ্গে ৯ বছর প্রেম করেছে, আমি ওর সঙ্গেই সংসার করতে চাই।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ওয়াসিম ফিরোজ ঢাকা পোস্টকে জানান, মেয়েটি টানা ৯ বছর প্রেমের দাবি করলেও আমিনুলের পরিবার অস্বীকার করছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। আর অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

আরএআর

Link copied