ব্যবসায়ীকে কোপানোর পর গুলি করার অভিযোগ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, মুন্সীগঞ্জ

২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮:৪০ এএম


ব্যবসায়ীকে কোপানোর পর গুলি করার অভিযোগ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে

শিপন পাটোয়ারী

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের আমঘাটা গ্রামে ইট-বালুর ব্যবসায়ীকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে কুপিয়ে ও গুলি করে গুরুতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। আহত ব্যবসায়ী জিয়া সরদারকে (৪৫) মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে ওই ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শিপন পাটোয়ারী ও তার লোকজন এ ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগ উঠেছে। আহত ব্যবসায়ী একই ইউনিয়নের নোয়াদ্দা (ঢালীকান্দি) গ্রামের বিএনপি নেতা জেদ্দাল সরদারের ছেলে। যুবলীগ নেতা শিপন পাটোয়ারী মোল্লাকান্দি ইউপির চেয়ারম্যান রিপন হোসেন পাটোয়ারীর ছোট ভাই।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, এদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পার্শ্ববতী টঙ্গীবাড়ি উপজেলার সেরজাবাদ গ্রামের ইটবালু বিক্রির প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে মেয়েকে স্কুল থেকে আনতে রওনা দেন জিয়া। পথিমধ্যে বেশনাল কাভভার্টের সামনে পৌঁছালে ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শিপন পাটোয়ারীসহ ১০-১২ জনের একটি গ্রুপ ডিবি পুলিশের পরিচয়ে ওই ব্যবসায়ীকে মাইক্রোতে তুলে নেয়।

সেখান থেকে ব্যবসায়ীকে আমঘাটা গ্রামে নিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি কোপায়। পরে পায়ে আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি করে রাস্তার ওপর ফেলে দেয়। এরপর স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে রেফার্ড করেন।

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত ডাক্তার শৈবাল বসাক জানান, শরীরে ধারালো অস্ত্রের একাধিক চিহ্ন রয়েছে। 

আহত জিয়া সরদারের বড় ভাই বাবুল সরদার বলেন, আমার ভাই তার মেয়েকে স্কুল থেকে আনতে গেলে পথিমধ্যে ইউপি চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারীর ছোট ভাই যুবলীগ নেতা শিপন পাটোয়ারীসহ কয়েকজন ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে যায়। পরে তাকে কোপায় ও পায়ে গুলি করে। ওই সময় যুবলীগ নেতা শিপন পাটোয়ারীর সঙ্গে কানা সোহাগসহ ১০ থেকে ১২ জন ছিল।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতার বড় ভাই রিপন হোসেন পাটোয়ারী বলেন, কে বা কারা কুপিয়েছে জানি না। তবে আমার ভাই এর সঙ্গে জড়িত না। তাছাড়া যাকে কুপিয়েছে, সে মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি।

সদর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ফরিদ জানান, ঘটনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। বর্তমানে সেখানকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আহত ব্যবসায়ী বিদায়ী বছরের ২১ সেপ্টেম্বর শহরের উপকন্ঠ মুক্তারপুর পুরাতন ফেরীঘাটে পুলিশের ওপর বিএনপি কর্মীদের হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামি।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারিকুজ্জামান ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমরা ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করছি। এখন পরিস্থিতি শান্ত আছে। এ ঘটনায় এখনো লিখিত কোনো অভিযোগ পাইনি। ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে বিস্তারিত বলতে পারব। 

সদর সার্কেলের (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) খান্দার খাইরুল হাসান বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা তথ্য পেয়েছি ওই ব্যক্তিকে ডিবির পরিচয়ে উঠিয়ে নিয়ে যায়। পরে তাকে মারধর করে। ওই ব্যক্তির শরীরে ধারালো অস্ত্রের কোপানোর চিহ্ন মিলেছে। পায়ে থেতলানো অংশ কোপ হতে পারে আবার ছররা গুলিও হতে পারে।

ব.ম শামীম/আরকে

Link copied