হীরা চুরির বিবাদের পর সম্পর্ক স্বাভাবিক করল সৌদি-থাইল্যান্ড

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৬ জানুয়ারি ২০২২, ০৭:১১ পিএম


হীরা চুরির বিবাদের পর সম্পর্ক স্বাভাবিক করল সৌদি-থাইল্যান্ড

সৌদি আরবের একটি প্রাসাদ থেকে ৫০ ক্যারেট ওজনের এক টুকরো হীরা চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া কূটনৈতিক সম্পর্ক ৩০ বছরের বেশি সময় পর পুনরায় পুরোপুরি স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব এবং থাইল্যান্ড। তিন দশক আগে নীল হীরার খণ্ড সৌদি আরবের একটি প্রাসাদ থেকে চুরি যাওয়ার সেই ঘটনার জন্য রিয়াদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন থাই প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান ওচা।

সৌদির রাজধানী রিয়াদে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে থাই প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের পর মঙ্গলবার এক যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, দুই দেশ নিকট ভবিষ্যতে রাষ্ট্রদূত নিয়োগ এবং ‘ঐতিহাসিক অগ্রগতির’ মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করতে রাজি হয়েছে।

১৯৮৯ সালে সৌদি আরবের এক প্রাসাদ থেকে হীরা লুট এবং পরবর্তীতে তিন সৌদি কূটনীতিক হত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যায়। এই ঘটনার তিন দশক পর এবারই প্রথমবারের মতো থাইল্যান্ডের কোনও প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরব সফর করছেন।

থাই-বংশোদ্ভূত নিরাপত্তা কর্মী ক্রিয়াংক্রাই টেচামং ১৯৮৯ সালে সৌদি আরবের এক প্রিন্সের প্রাসাদ থেকে ২০ গ্রাম ওজনের এক টুকরো হীরা চুরি করেন। ‌‘ব্লু ডায়মন্ড অ্যাফেয়ার’ নামে সেই সময় এই ঘটনা ব্যাপক পরিচিতি পায় বিশ্বজুড়ে; হীরা চুরিকে কেন্দ্র করে দুই দেশের মধ্যে তীব্র বিবাদ এবং ব্যাংককে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান-ওচার রিয়াদ সফরে দ্বি-পাক্ষিক কূটনৈতিক সম্পর্ক পুরোপুরি পুনঃপ্রতিষ্ঠায় যৌথ বিবৃতিতে ঘোষণা দিয়েছে উভয় দেশ। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘পারস্পরিক আস্থা ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য বিভিন্ন স্তরে দীর্ঘস্থায়ী প্রচেষ্টার ফল ঐতিহাসিক এই পদক্ষেপ।’

এদিকে, সৌদি প্রিন্সের সঙ্গে থাই প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের পর সৌদি এয়ারলাইন্স আগামী মে মাস থেকে থাইল্যান্ডে ফ্লাইট চলাচল শুরুর ঘোষণা দিয়েছে। থাই সরকার বলছে, হোটেল, স্বাস্থ্যসেবা এবং নির্মাণ প্রকল্পসহ বিভিন্ন খাতে ৮০ লাখ দক্ষ শ্রমিক নিতে চায় সৌদি আরব। সৌদি আরবের চাহিদা পূরণে সহায়তা করার জন্য থাইল্যান্ডের দক্ষ মানবসম্পদ রয়েছে বলে বৈঠকে জানিয়েছেন প্রায়ুত চান।

গয়না চুরির তদন্তে থাই পুলিশ বাধা দিয়েছে বলে সৌদি আরব দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ করে আসছিল। একই সঙ্গে থাইল্যান্ডের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা ওই হীরা নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ রিয়াদের।

পরবর্তীতে সেই হীরার কিছু অংশ থাই পুলিশ সৌদি আরবের কাছে ফেরত দিয়েছে। তবে সৌদি কর্মকর্তারা দাবি করেছেন যে, ফেরত দেওয়া হীরার বেশিরভাগই ভুয়া। যদিও ৫০ ক্যারেটের সবচেয়ে মূল্যবান এই নীল হীরক খণ্ডের হদিস এখনও অজানা।

বিভিন্ন সময়ে থাইল্যান্ডের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, দেশটির পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের স্ত্রীদের গলায় হীরার হার পড়তে দেখা গেছে; যার সঙ্গে সৌদি আরবে চুরি যাওয়া হীরা মিল রয়েছে।

সূত্র: ব্লুমবার্গ, আলজাজিরা।

এসএস

Link copied