ছুটির দিনে জমেছে ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৪৯ পিএম


অডিও শুনুন

ভ্রমণপিপাসুদের উৎসাহ জোগানোর পাশাপাশি পর্যটন শিল্পের প্রচার-প্রসারে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো-২০২২। মেলার দ্বিতীয় দিন শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় দর্শনার্থী, ভ্রমণপিপাসু, উৎসুক মানুষের পদচারণায় জমে উঠেছে পর্যটন মেলা।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপোতে বিকেল থেকে মেলায় আগতদের সংখ্যা বেড়েছে।মেলায় কেউ এসেছেন পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কেউবা বন্ধু বান্ধব সহ দলবেঁধে অথবা স্বজনকে সঙ্গে নিয়ে। আবার কেউ কেউ একাই এসেছেন ভ্রমণবিষয়ক নানান ছাড়, অফার, ডিসকাউন্টের খোঁজ নিতে। এসব ভ্রমণপ্রেমী মানুষের উপস্থিতিতে জমে উঠেছে পুরো মেলা প্রাঙ্গণ। গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে এই ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো শুরু হলেও গতকালের তুলনায় আজ দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখর পুরো আয়োজনস্থলজুড়েই।

আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৩ দিনব্যাপী বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো-২০২২ এ ভারত, মালয়েশিয়া, ভুটান, নেপাল, মালদ্বীপ, ওমান, শ্রীলঙ্কা, তুরস্ক, আজারবাইজান, কোরিয়া, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুর, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ ১৫টির বেশি দেশ থেকে এয়ারলাইন্স, হসপিটাল, ট্যুরিজম বোর্ড, ট্রাভেল এজেন্সি, ট্যুর অপারেটর, হোটেল, রিসোর্ট, ক্রুজ লাইনার, ডেস্টিনেশন ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি এবং অন্যান্য ট্রাভেল ও ট্যুরিজম খাত সংশ্লিষ্ট সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করছেন।

বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপোটির আয়োজন করেছে  অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রাভেল এজেন্টস অব বাংলাদেশ (আটাব)। এবারের আয়োজনে টাইটেল স্পন্সর হিসেবে রয়েছে দেশের আকাশে সদ্য ডানা মেলা এয়ার অ্যাস্ট্রা। আয়োজনটির নাম দেওয়া হয়েছে এয়ার অ্যাস্ট্রা-বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো।  এছাড়া আয়োজনটির কো স্পন্সর হিসেবে রয়েছে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স।

রাজধানীর উত্তরা থেকে ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপোতে এসেছেন আহসান কবির। তিনি একটি বহুজাতিক কোম্পানিতে কর্মরত আছেন। সঙ্গে এনেছেন সদ্য বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া তার স্ত্রী তানিয়া হক। আহসান কবির বলেন, বিয়ের পরে হানিমুনে যাওয়া হয়নি এখনও, তাই আজ ট্যুরিজম ফেয়ারে এলাম বিভিন্ন অফার, ডিসকাউন্টের খোঁজ নিতে। আমরা থাইল্যান্ড যেতে চাই। তাই বিভিন্ন স্টল ঘুরে ঘুরে এ বিষয়ে তথ্য জানার চেষ্টা করছি।

মেলার স্টল, প্যাভিলন ঘুরতে ঘুরতে কথা হয় একজন ভ্রমণপ্রেমী সাজিদ হোসেনের সঙ্গে। তিনি বলেন, আমার মতো অনেকে আছেন যারা দেশ বিদেশে ঘুরতে ভালোবাসে। তাদের কাছে এমন ট্যুরিজম ফেয়ার একটি আগ্রহের ইভেন্ট। এখানে এলে ভ্রমণবিষয়ক নানান তথ্য, ডিসকাউন্ট  অফার, হোটেল, বিমান টিকিটের ছাড় পাওয়া যায়। সে কারণেই মেলায় আসা, ঘুরে ঘুরে খোঁজ খবর নেওয়া। গতকালও এসেছিলাম এই মেলায়। তবে আজ সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়া মেলায় আগতেদের সংখ্যা অনেক বেশি। প্রতিটি স্টলেই ভিড় লেগে আছে মানুষের।

ট্যুরিজম উইন্ডিও নামক  ট্রাভেল এজেন্সির স্টলে দায়িত্বরত আরিফুর রহমান বলেন, আজ মেলায় আগতদের সংখ্যা আসলেই অনেক বেশি। ছুটির দিন বলে আজ মেলা জমে উঠেছে। গতকালের তুলনায় আজ সকাল থেকেই ভ্রমণপ্রেমীদের আনাগোনায় আলাদা মাত্রা পেয়েছে মেলা প্রাঙ্গণ। তবে দুপুরের পর থেকে মেলায় আসা মানুষ আরও বেড়েছে। সবাই আমাদের স্টলগুলোতে আসছে, ভ্রমণবিষয়ক নানান খোঁজ খবর, অফার, ডিসকাউন্ট বিষয়ে জেনে যাচ্ছে। আগামীকালও মেলা চলবে, আশা করছি আগামীকালও এমন সাড়া পাবো আগতদের।

আয়োজকরা জানান, গতকাল শুরু হওয়া এই মেলে সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত চলবে সবার জন্য উন্মুক্ত থাকছে। এছাড়া ৩ দিনের মেলায় ৩টি বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিতও হচ্ছে। এক্সপোতে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ট্রাভেল এজেন্ট ও ট্যুর অপারেটরদের মধ্যে ব্যবসায়িক সংযোগ ও সম্পর্ক তৈরি হবে এবং দেশের জনসাধারণ বিশ্বব্যাপী ভ্রমণের তথ্য প্যাকেজ ও এয়ার টিকেট সম্পর্কে জানতে তথ্য জানাতে পারছেন।

এএসএস/এমএ

Link copied