অন্যের বিপদে যে দোয়া পড়বেন

Dhaka Post Desk

ধর্ম ডেস্ক

১৪ আগস্ট ২০২২, ০৬:৩৩ পিএম


অন্যের বিপদে যে দোয়া পড়বেন

পৃথিবীতে চলার পথে সুখ-দুঃখ, বিপদ-আপদ মানুষের নিত্যসঙ্গী। আল্লাহ তায়ালা মানুষকে পরীক্ষা করেন যে সে সুখে মহান রবের শুকরিয়া আদায় ও দুঃখে ধৈর্য ধারণ করে কিনা। তাই বিপদ-আপদ, সুখে,স্বাচ্ছন্দ্য সব পরিস্থিতিতে আল্লাহর পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া মুমিনের কর্তব্য।

হাদিসে এসেছে, নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, মুমিনের বিষয়াদি কত আশ্চর্যের! তার সবকিছুই কল্যাণকর। আর এটা তো কেবল মুমিনের ক্ষেত্রেই হতে পারে। সচ্ছলতায় সে শুকরিয়া আদায় করে, তখন তা তার জন্যে কল্যাণকর হয়। আর যদি তার ওপর কোনো বিপদ নেমে আসে তাহলে সে সবর করে, ফলে তাও তার জন্যে কল্যাণকর হয়ে যায়। -(সহীহ মুসলিম, হাদীস, ২৯৯৯)

মানুষ শুধু নিজে বিপদে পড়ে না। অনেক সময় বন্ধু-প্রতিবেশী, আত্মীয়-স্বজন ও পরিচিত অনেকে বিপদে পড়ে। অন্যের বিপদে এগিয়ে আসা ও সাহায্য করাই মানবতার দাবি ও ইসলামের শিক্ষা। তবে অনেক সময় চাইলেও বিপদগ্রস্ত ব্যক্তিকে সাহায্য করার সক্ষমতা থাকে না বিভিন্ন কারণে। যা অন্তরকে ব্যথিত করে।

তবে অন্যের বিপদে সাহায্য করতে না পারলেও তার জন্য আল্লাহ তায়ালার দরবারে রহমত কামনা করা উচিত। এবং সে যেন দ্রুত এই বিপদ থেকে মুক্ত হয় সেজন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করা। 

এছাড়া আল্লাহর রাসুল (সা.) অন্ধ, কুষ্ঠরোগ, অসুস্থতা, দরিদ্র ইত্যাদি বিপদে ও মুসিবতে আক্রান্ত কোনো ব্যক্তিকে দেখলে একটি দোয়া পড়ার কথা বলেছেন, সেই দোয়াটি পড়া উচিত। এর মাধ্যমে হতে পারে আল্লাহ তায়ালা সেই ব্যক্তিকে এ ধরনের বিপদ-মুসিবত থেকে হেফাজত করবেন।

 

দোয়াটি হলো -

اَلْحَمْدُ لِلَّهِ الَّذِىْ عَافَانِىْ مِمَّا ابْتَلَاكَ بِهِ – وَ فَضَّلَنِىْ عَلَى كَثِيْرٍ مِّمَنْ خَلَقَ تَفْضِيْلَا

উচ্চারণ : আলহামদুলিল্লাহিল্লাজি আফানি মিম্মাবতালাকা বিহি; ওয়া ফাদ্দালানি আলা কাছিরিম মিম্মান খালাকা তাফদিলা।’

অর্থ : সব প্রশংসা আল্লাহর জন্য যিনি তোমাকে বিপদাক্রান্ত করেছেন; তা থেকে আমাকে নিরাপদ রেখেছেন এবং আমাকে তিনি তার মাখলুক থেকে মাখলুকের ওপর শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছেন।’ তখন তাকে এ মুসিবত কখনো স্পর্শ করবে না।’ (তিরমিজি. মেশকাত, মকবুল দোয়া : ১৪৯)

এনটি

Link copied