মাউশির জরিপ

অনুপস্থিতির হার বেশি ময়মনসিংহে, শিশুশ্রমে এগিয়ে রাজশাহী

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৬ আগস্ট ২০২২, ১১:১৫ এএম


অনুপস্থিতির হার বেশি ময়মনসিংহে, শিশুশ্রমে এগিয়ে রাজশাহী

করোনা মহামারিতে দুই বছরের বেশি সময় ধরে বন্ধ ছিল দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। মহামারি চলাকালীন ২০২১ সালের মাধ্যমিক পর্যায়ের বার্ষিক পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিল চার লাখ ৮১ হাজার ৫৫ জন শিক্ষার্থী, যা মোট শিক্ষার্থীর ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ।

অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে শতকরা হারে এগিয়ে ময়মনসিংহ অঞ্চল। আর সংখ্যার দিক থেকে এগিয়ে ঢাকা অঞ্চল। অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে বাল্যবিবাহ ও শিশুশ্রম দুটো দিক দিয়েই শতকরা হার সবচেয়ে বেশি রাজশাহী অঞ্চলে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মনিটরিং অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশন উইং পরিচালিত এক জরিপ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

জরিপের তথ্য বলছে, অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ঢাকা অঞ্চলে ৭৪ হাজার ৪৮৬ জন (৭.১০ শতাংশ), ময়মনসিংহ অঞ্চলে ৭৪ হাজার ২৬৩ জন (৮.৯৩ শতাংশ), রাজশাহী অঞ্চলে ৬৫ হাজার ২১৩ জন (৭.২৩ শতাংশ), চট্টগ্রাম অঞ্চলে ৫৮ হাজার ৯১৩ জন (৭.৭৮ শতাংশ), রংপুর অঞ্চলে ৫৫ হাজার ৫৭ জন (৮.১৫ শতাংশ), কুমিল্লা অঞ্চলে ৫২ হাজার ৪০ জন (৮.৪২ শতাংশ), খুলনা অঞ্চল ৫১ হাজার ১৫ জন (৭.৩৫ শতাংশ), সিলেট অঞ্চলে ২৮ হাজার ৫৬৯ জন (৮.৫০ শতাংশ) ও বরিশাল অঞ্চলে ২১ হাজার ৪৯৯ জন (৬.৬২ শতাংশ)।

২০২১ সালে শিক্ষার্থী ভর্তি এবং বার্ষিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের তুলনামূলক চিত্র জানতে মাউশির অধীন ৯টি অঞ্চল থেকে জরিপটি পরিচালনা করা হয়। চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি এ সংক্রান্ত তথ্য চেয়ে মাধ্যমিক স্তরের ১৯ হাজার ৪১১টি প্রতিষ্ঠানে চিঠি পাঠায় মাউশি। এর মধ্যে ১১ হাজার ৬৭৯টি প্রতিষ্ঠানের প্রাপ্ত তথ্য থেকে গত ১১ আগস্ট জরিপের প্রতিবেদন চূড়ান্ত করা হয়।

জরিপে বলা হয়, ২০২০ সালে ১১ হাজার ৬৭৯টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মাধ্যমিক পর্যায়ে ভর্তি হওয়া মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৬৫ লাখ ৫৬ হাজার ৫৩৬ জন। এর মধ্যে ছাত্র ২৯ লাখ ৬২ হাজার ৪৫ জন এবং ছাত্রী ৩৫ লাখ ৯৪ হাজার ৪৯১ জন। ২০২১ সালে এ সংখ্যা দাঁড়ায় ৬৬ লাখ ৪৯ হাজার ৫৩৮ জনে। এর মধ্যে বালক ৩০ লাখ ২১ হাজার ২৩৩ জন এবং ৩৬ লাখ ২৮ হাজার ৩০৫ জন।

করোনা অতিমারির মধ্যেও ২০২০ সালের তুলনায় ২০২১ সালে শিক্ষার্থী বৃদ্ধি পেয়েছে ৯৩ হাজার ২ জন।

২০২১ সালের বার্ষিক পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ৬১ লাখ ৬৮ হাজার ৪৮৩ জন। অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ছাত্র ২৮ লাখ ৫ হাজার ৭৯১ জন এবং ছাত্রী ৩৩ লাখ ৬২ হাজার ৬৯২ জন। পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিল ৪ লাখ ৮১ হাজার ৫৫ জন, যা মোট শিক্ষার্থীর ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ।

বাল্য বিবাহের কারণে ৪৭ হাজার ৪১৪ জন (৯.৮৬ শতাংশ), শিশুশ্রমে নিযুক্ত হওয়ায় ৭৭ হাজার ৭০৬ জন (১৬.১৫ শতাংশ) এবং অন্যান্য কারণে ৩ লাখ ৫৫ হাজার ৯৩৫ জন (৭৩.৯৯ শতাংশ) শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অনুপস্থিত থাকে।

বাল্যবিবাহের কারণে রাজশাহী অঞ্চলে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১০ হাজার ৩১৭ জন (১৫.৮২ শতাংশ), খুলনা অঞ্চলে ৮ হাজার ৬৪ জন (১৫.৮১ শতাংশ), রংপুর অঞ্চলে ৭ হাজার ৪২৫ জন (১৩.৪৯ শতাংশ), ময়মনসিংহ অঞ্চলে ৫ হাজার ৮০৩ জন (৭.৮১ শতাংশ), ঢাকা অঞ্চলে ৫ হাজার ২৫৫ জন (৭.০৬ শতাংশ), কুমিল্লা অঞ্চলে ৪ হাজার ৭৫৫ জন (৯.১৪ শতাংশ), চট্টগ্রাম অঞ্চলে ৩ হাজার ৫৩ জন (৫.১৮ শতাংশ), বরিশাল অঞ্চলে ১ হাজার ৫১৪ জন (৭.০৪ শতাংশ) ও সিলেট অঞ্চলে ১ হাজার ২২৮ জন (৪.৩০ শতাংশ)।
 
আরও জানা যায়, শিশুশ্রমের কারণে রাজশাহী অঞ্চলে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১২ হাজার ২৬১ জন (১৮.৮০ শতাংশ), ময়মনসিংহ অঞ্চলে ১১ হাজার ৫৪৬ জন (১৫.৫৫ শতাংশ), ঢাকা অঞ্চলে ১০ হাজার ৯৮৫ জন (১৪.৭৫ শতাংশ), রংপুর অঞ্চলে ৯ হাজার ৬৮৫ জন (১৭.৫৯ শতাংশ), কুমিল্লা অঞ্চলে ৮ হাজার ৫৭৯ জন (১৬.৪৯ শতাংশ), খুলনা অঞ্চলে ৮ হাজার ৩৬৭ জন (১৬.৪০ শতাংশ), চট্টগ্রাম অঞ্চলে ৭ হাজার ৪৭২ জন (১২.৬৮ শতাংশ), সিলেট অঞ্চলে ৫ হাজার ৩০ জন (১৭.৬০ শতাংশ) আর বরিশাল অঞ্চলে ৩ হাজার ৭৮১ জন (১৭.৫৯ শতাংশ)।

এছাড়া অন্যান্য কারণে রাজশাহী অঞ্চলে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪২ হাজার ৬৩৫ জন (৬৫.৩৮ শতাংশ), ময়মনসিংহ অঞ্চলে ৫৬ হাজার ৯১৪ জন (৭৬.৬৪ শতাংশ), ঢাকা অঞ্চলে ৫৮ হাজার ২৪৬ জন (৭৮.২০ শতাংশ), রংপুর অঞ্চলে ৩৭ হাজার ৯৪৭ জন (৬৮.৯২ শতাংশ), কুমিল্লা অঞ্চলে ৩৮ হাজার ৭০৬ জন (৭৪.৩৮ শতাংশ), খুলনা অঞ্চলে ৩৪ হাজার ৫৮৪ জন (৬৭.৭৯ শতাংশ), চট্টগ্রাম অঞ্চলে ৪৮ হাজার ৩৮৮ জন (৮২.১৩ শতাংশ), সিলেট অঞ্চলে ২২ হাজার ৩১১ জন (৭৮.১০ শতাংশ) আর বরিশাল অঞ্চলে ১৬ হাজার ২০৪ জন (৭৫.৩৭ শতাংশ)।

প্রাপ্ত তথ্যের হিসাবে ময়মনসিংহ অঞ্চলে পরীক্ষায় অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর শতকরা হার সর্বোচ্চ ৮.৯৩ শতাংশ এবং বরিশাল অঞ্চলে এ হার সর্বনিম্ন ৬.৬২ শতাংশ। বাল্যবিবাহের কারণে শিক্ষার্থীর অনুপস্থিতির হার সর্বোচ্চ রাজশাহী অঞ্চলে। মোট অনুপস্থিতির ১৫.৮২ শতাংশ এই অঞ্চলের। সর্বনিম্ন হার সিলেটে, মোট অনুপস্থিতি ৪.৩০ শতাংশ। শিশুশ্রমের কারণে শিক্ষার্থীর অনুপস্থিতির হার সর্বোচ্চ রাজশাহী অঞ্চলে। মোট অনুপস্থিতির ১৮.৮০ শতাংশ এই অঞ্চলের। সর্বনিম্ন হার চট্টগ্রামে, মোট অনুপস্থিতির ১২.৬৮ শতাংশ।

এএজে/এমএইচএস

Link copied